ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

মালয়শিয়া বিমান বন্দরে LCCT বা KLIA যে পথে আসুন না কেন আপনাকে পরতে হবে এক হয়রানির মাঝে। সাধারনত বিমান থেকে নেমে immigration ডেস্ক এ যেতে হয়। কিনতু এখানে বিষয়টা ভিন্ন। এখানে বিমান থেকে নামার পর পর ই হাজির হন ৫-৬ জন immigration officer. তার পর জেরা।সব শেষে জেলে এর পর দেশে ফেরত। Tourist হিসেবে worker রা আসে বিধায় মালয়শিয়ার immigration এমন টি করেন। কিনতু এতে করে সাধারন যাত্রীরাও হয়রানির শিকার। আর এমন একটা airport এ যে খানে সারা বিশ্বের মানুষ আসে,সে খানে বাংলাদেশ থেকে আসা যে কোন বিমান এর সামনে যদি এমনটা হয় তো জাতি হিসেবে আমাদের সমমান থাকে কই?

বাংলাদেশ দূতাবাস এই বিষয়ে নিরব।তারা বিষয় টা যেনে ও না জানার ভান করে আছেন।তারা বলেন “এটা এ দেশের সরকারের বিষয়। আমাদের কী করার আছে?। …সাধারণদের কথা “যদি কুটনীতিক সুসম্পর্ক বজাই নাই রাখতে পারেন তো দামি গাড়ি আর বাড়ি দিয়ে দেশের টাকা না উড়িয়ে দেশে চলে যান।” শুধু মালয়েশিয়াতেই না। বিশ্বের সব দূতাবাসের এ এই হাল। সরকারের এই বিষয়ে নজর রাখা দরকার।