ক্যাটেগরিঃ মতামত-বিশ্লেষণ

 

ইদানিং এ.এইচ.এন এর জনাব সালীম সামাদ ঢাকা ইউনিভার্সিটির শিক্ষক অধ্যাপক ডঃ আসিফ নজরুলের বিরুদ্বে বেশ জোরেশোরেই লেগেছেন। যেমনটা ইদানিং আমরা দেখছি বাংলাদেশ প্রতিদিন লেগেছে প্রথম আলোর পিছনে ।

ডঃ নজরুল বিরোধী বিভিন্ন লেখা তিনি ফেসবুকে শেয়ার করছেন। তাকে রাজাকারদের দোষর হিসাবে চিহ্নিত করতে চাচ্ছেন অনেকেই , সর্বশেষ গত ১৫ই জানুয়ারী দেখলাম জনাব সামাদ বাংলাভিশনে ডঃ আসিফ নজরুল এর ফরন্ট লাইন লাইফ টক শো প্রোগ্রাম এর ভিডিও শেয়ার করছেন। কেন করছেন বুঝাগেল না। ডঃ নজরুল বিভিন্ন প্রোগ্রামে অংশ নিয়ে যে মতামত ব্যাক্ত করছেন তা হচ্ছে তার একান্ত নিজের মতামত তিনি বলছেন ,

১/ ট্রাইবুনালকে নিয়ে তার ১টা বক্তব্য ছিল যে ট্রাইবুনালের প্রধান নিজামুল হকের নিয়োগটি একটু বিতর্কিত। কেননা নিজামুল হক জাহানারা ইমামের নেতৃত্বে গন আদালতের কার্যক্রমের সাথে জরিত ছিলেন । সে ক্ষেত্রে ডঃ আসিফ নজরুল তার নিজস্বঃ মতামত দিয়েছেন।

২/ প্রসিকিউসন টিম সম্পকে ডঃ আসিফ বলেছেন, তার কাছে দুর্বল মনে হয় এই টিম । দেশে অনেক সিনিয়র স্বনামধন্য আইনজীবী আছেন যাদেরকে এই টিমে স্থান করে দিলে প্রসিকিউশন টিমের ভাবমূর্তি অনেক বারত।

৩/ দেলোয়ার হোসেন সাইদীকে নিয়ে তিনি বলছেন, মানবতা বিরোধী অপরাধ মমলায় যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে । তাদের মধ্যে তিনি মনে করেন জনাব দেলোয়ার হোসেন সাইদী তেমন উল্লেখ যোগ্যে কেহ নয়। কারন ১৯৭১ সালে সাইদীর ব্যাক্তিগত ভাবে তেমন কোন প্রভাব প্রতিপত্তি ছিলনা। তিনি পারেরহাটে একজন সামান্ন মুদি দোকানদার ছিলেন। তার নামে যত অভিযোগ আনা হয়েছে সব অভিযোগ সত্য নাও হতে পারে। কারন জনাব আসিফ নজরুল মনে করেন, তখন তিনি অতটা সাংগঠানিকভাবে শক্তিশালী ছিলেননা। তখন তিনি জামাতের সদস্য ছিলেন না। তিনি মনে করেন জামাতে যোগদান করার পরে জনাব সাইদী যতটানা যুদ্বাপরাধের জন্য দায়ী বলে পরিচিত হয়েছেন তার পূর্বে তার নামে যুদ্বাপরাধের তেমন অভিযোগ ছিল না। এখন ট্রাইব্যুনাল যে সব অভিযোগ সংগ্রহ করছেন। এই ব্যাপার গুলি অধ্যাপক ডঃ আসিফ নজরুলের জানা নেই। তবে ট্রাইব্যুনাল যদি সেগুলি প্রমান করতে পারে তবে -“ওয়েল এন্ড গুড”।

আমরা মনে করিনা এখানে ডঃ আসিফ নজরুল রাজাকারদের প্রিয় পাত্র হয়ে গেছেন। আসিফ নজরুল তার মতামত ব্যাক্ত করছেন মাত্র। কোন অপ প্রচার ডঃ আসিফ নজরুলের ভাবমুর্ত্তিতে কালিমা দিবেনা। আসিফ নজরুল সাদাকে সাদা কালোকে কালো বলেন। আমরা দেখছি দল মত নির্বিশেষে ডঃ আসিফ নজরুল সবাইকে অত্যান্ত যৌক্তিক সমালোচনা করছেন। সরকারের ভাল কাজের সে প্রশংসা করেন খারাপ কাজের সমালোচনা করেন।তেমনি বিরোধী দলের পার্লামেন্ট বয়কটকে তিনি সমালোচনা করছেন। বর্তমান সরকারের সাফল্যের কথা বলতে গিয়ে জনাব আসিফ নজরুল বলেন, আমরা মিডিয়ায় আমাদের বক্তব্য তুলে ধরতে পারছি এটা একটা সাফল্য।

ডঃ আসিফ নজরুলের অফিস কক্ষে যারা অগ্নীসংযোগ করলেন , পরিবর্তনের এই দিনে তারাই তো সাদা মনের মানুষ! মনে হয় তেমনটাই দেখছি এখন।

পরিশেষে বলব,-সবার মনের মধ্যেই একটা মতামত থাকে। তেমনি ডঃ আসিফ নজরুলের মনের মধ্যেও একটা মতামত রয়েছে, যেটা নিরপেক্ষ নাও হতে পারে । আর মত নিরপেক্ষ হওয়া কাম্যও নয়, কাম্য শুধু দল নিরপেক্ষ হওয়া ।ডঃ আসিফ নজরুল এর ব্যাতিক্রম নয়।