ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

 

লিংক

মাননীয় অর্থমন্ত্রীকে এনবিআর যে ফাঁদে ফেলেছে সেখান থেকে তার বের হবার কোন ক্ষমতাই নেই। ২০০৫ থেকে ২০১২ এর ফারাক কত ? সে সময় করমুক্ত আয়সীমা ছিল ১৬৫০০০ টাকা। ২০০৯ এ এন বি আর ফর্মুলা দিল- সব চুনোপুটি জালে আটকানোর জন্য এ সিলিং পরিবর্তন করা হয়নি। তারপর অনেক বিজ্ঞ অর্থনীতিবিদদের পরামর্শে একে সংশোধন করে ১৮০০০০ করা হল । ২০১২ সালে যেখানে দ্রব্যমূল্যের কষাঘাতে নির্দিষ্ট আয়ের লোকরা হিমশিম খাচ্ছে সেখানে এসে এই সিলিং অপরিবর্তিত রাখা হল , কেন ? একমাত্র দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য ব্যতীত একটি লোক এর প্রতিবাদ করলেন না। কারণ কি? দেখুন কারণ কি?

কারণ খুব পরিষ্কার। এনবিআর এর খাতায় এদেশের যত বড় বড় ধনকুবের কুমিররা রয়েছেন মূলত তাদেরকে কাগজে কলমে ফকির বানিয়ে রাখাই হচ্ছে তাদের মেই গবেষণা । তাদেরকে যত ফকির বানিয়ে রাখতে পারবেন, ততোই এই চাকরিজীবীদের আখের গোছানো সহজ হবে । এজন্য কোন ধনকুবের এই সিলিং এর প্রতিবাদ করেননি। তারা বেজায় খুশী । হিসেবটা মিলছে কি না ?

তাহলে হিসেবটা কি দাঁড়ালো ? যে ব্যক্তি প্রতি মাসে ১৫০০১ টাকা আয় করবেন তিনি এই কর সীমার মধ্যে আসবেন । আপনারাই বলুন, বর্তমান বাজার মূল্য যেখানে এসে ঠেকেছে তাতে প্রতি মাসে ১৫০০১ টাকা যিনি আয় করেন, তার সংসার চলছে কীভাবে ? তার সামাজিক অবস্থান কোন লেভেলে ? এন বি আর এর তথাকথিত চুনোপুটি জালে আটকাবার এ ফর্মুলা নীলকরদের জুলুমকে ছাড়িয়ে গেছে কী না ? ভেবে দেখুন তো ?

নব্য নীলকরদের এ জুলুম বন্ধ করুন ।