ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

কিছুদিন আগের চট্টগ্রামের মিরেরসরাইয়ের ঘটনা জাতি এখনও ভুলতে পারেনি । কতগুলো তাজা প্রাণ এক মুহূর্তে ঝরে গেল । সেই ঘটনা ঘটেছে চালকের ভুলের কারণে । গত রাতে আবার সেই একই ঘটনা । কিছু মেধাবী ছাত্র এলাকাবাসীর ভুলের কারণে অকালে ঝরে গেল । প্রথমে খবর বের হল গণপিটুনিতে ডাকাত নিহত হয়েছে, পরে জানা গেল তাঁরা সবাই মেধাবী ছাত্র ছিল । এইসব ছাত্রদের পরিবার পরিজনের প্রতি রইলো গভীর সম-বেদনা । আসলে এই ঘটনার জন্য কে দায়ী ? স্থানীয় সংসদ সদস্য বলেছেন দায়ীদের শাস্তির ব্যবস্থা করবেন । প্রশাসন থেকেও একই আশ্বাস দেওয়া হয়েছে । খবরে প্রকাশ কিছুদিন আগে ঐ এলাকায় ডাকাতি হয়েছিল । তাই এলাকাবাসী পাহারা বসিয়েছে । ঢাকার এতো কাছের মানুষ যদি ডাকাতের ভয়ে রাত জেগে পাহারা দেয় তাহলে সারা দেশের কি অবস্থা তা সহজে অনুমান করা যায় । একটু চিন্তা করলেই দুটি ঘটনার কারণ সম্পর্কে ধারনা পাওয়া যাবে । মূলত দুটি ঘটনার পেছনে আইন শৃঙ্খলা অবনতিই দায়ী ।

যদি চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স যথাযত ভাবে নিয়ন্ত্রন করা হত তাহলে এমন ঘটনা ঘটত না । আবার আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যদি ডাকাতির ঘটনার পর কার্যকর পদক্ষেপ নিত তাহলে গ্রামবাসী এমন ঘটনা ঘটাত না । আমাদের দেশে সাধারণ জনগণ প্রশাসন থেকে আস্থা হারিয়ে ফেলেছে তার আরেকটি প্রমান হল আমিন বাজারের ঘটনা । মানুষের আস্থা কমে যাওয়ার কারণে আইন নিজের হাতে তুলে নিয়েছে । মাঝে মাঝে পুলিসের উপস্থিতিতে গণধোলাই এর খবরও আমরা পত্রিকা মারফত জানতে পারি । আর এই কারণে জনগণও এই ব্যাপারে উদাসীন । সাতজন ছাত্রকে আটক করে গ্রামবাসী পুলিশে দিতে পারত,কারন এখন পর্যন্ত এই রকম খবর বের হয়নি যে তাঁদের সাথে কোন অস্ত্র ছিল । আর ছাত্রদেরও নিশ্চয় এক বাড়িতে মারা যায়নি; তার মানে( ঠাণ্ডা মাথায় ) তাদেরকে হত্যার উদ্দেশ্যেই গণপিটুনি দেওয়া হয়েছে । পরিশেষে আমরা সাধারন জনগণ এইটাই চাইব ঘটনার তদন্ত করে প্রকৃত ঘটনা জনগণের সামনে প্রকাশ করা হোক । আর জাতে এমন দুঃখজনক ঘটনা না ঘটতে পারে এই কামনা করি ।