ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

 

বাংলাদেশ সরকার আদিবাসীদের ব্যপারে একটা বিপরীত অবস্থান নিয়েছে। বাংলাদেশে কোন আদিবাসী নেই মর্মে বিবৃতি প্রদান করছে । এগুলো সব পুরনো খবর । মিডিয়ার কল্যাণে সবাই কমবেশি এব্যাপারে অবগত আছে । কিছুদিন আগে আমাদের মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রী দেবাশিস বাবুর বাদানুবাদ আমরা দেখেছি । কিন্ত এব্যাপারে কোন স্থির সিদ্ধান্তে সরকার আসতে পারেনি । বরং এ ব্যাপারটি সরকার আর আদিবাসী জনগণ মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে । আমরা যারা আদিবাসী সম্প্রদায় তাঁরা কোন বিরাট কিছু কখনই চাইনি । সরকারের একটি শক্তিশালী অংশ চাইনা আদিবাসী বিষয়ে কোন সমাধান হোক । ব্যাপারটা ঝুলিয়ে রাখলে অদূর ভবিষ্যতে এনিয়ে ভোটের রাজনীতি করা যাবে । তবে তা যে হবার নয় এই কথাটি সরকারের একজন প্রভাবশালী এমপি কথা প্রসঙ্গে বলে দিয়েছেন । আমাদের দেশে আদিবাসী বিষয়ক কোন কথা উঠলে সবাই ধরে নেয় পার্বত্য জেলার কথা । এ ছাড়াও সমতলে যে আদিবাসী বাস করে সেটা কারো মাথায় কাজ করে না । বরং সমতলের আদিবাসীরা আরও বেশি প্রান্তিক । সরকারি চাকুরি বা শিক্ষা ক্ষেত্রে তাঁরা বেশি পিছিয়ে । আর দিনকে দিন তাঁরা সংখ্যাই ক্রমেই কমে যাচ্ছে । এব্যাপারে কারো কোন পদক্ষেপ নেই । এর মধ্যেই নিজেদের অস্তিত্ব জাহির করতে তাঁরা বিভিন্ন অনুষ্ঠান পালন করে সরকারের মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করছে । এ ব্যাপারে মিডিয়া যথেষ্ট ভূমিকা রাখছে । কিন্তু আমার প্রশ্ন হচ্ছে দেশের বর্তমান অবস্থায় কি এর কোন ভালো ফল আশা করতে পারি ? বর্তমানে পেপার বা টেলিভিশন খুললেই দেখি রাস্তা ঘাট নিয়ে কতো রিপোর্ট, কিন্তু এতো কিছুর পরে আমরা সরকারের কোন ভালো পদক্ষেপ নিতে দেখছি কি ? এতো গুলো মিডিয়া মিলে প্রচার করে যদি জনগণের এই দুর্ভোগের সমাধান না হয় তাহলে একটা ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর আদিবাসী দিবস পালন কোন কাজে আসবে বলে মনে হয় কি? আর সরকার তো বলে দিয়াছে বাংলাদেশে কোন আদিবাসী নেই । সরকারের একটা গোয়েন্দা রিপোর্টে আদিবাসী হিসেবে স্বীকৃতি দিলে ভয়াবহ অবস্থা সৃষ্টির কথা বলা হয়েছে, তাহলে কেন এই অরণ্যে রোদন?