ক্যাটেগরিঃ স্বাস্থ্য

 

আমাদের গ্রামের বাড়ির পাশে সপ্তাহে একটি হাট বসে । জীবনের কত সৃতি জড়িয়ে আছে এই হাটকে নিয়ে তার কোন সঠিক হিসেব নেই । তবে এখানে একটি ছোট ঘটনা জানাব । সকালে বাড়ি থেকে মা পাঠালেন কিছু বাজার করার জন্য । কিছু টাকা হাতে নিয়ে সোজা হাটের দিকে রওয়ানা হলাম । হাটে ঢোকার কাছেই কিছু লোকের জটলা, মনে উৎসাহ নিয়ে এগিয়ে গেলাম । গিয়ে দেখি একটা লোক জাদু খেলা দেখাচ্ছে । প্রথমে কিছু ম্যাজিক জাতীয় কিছু একটা দেখানোর পর শুরু হল আসল যাদু । আমি বেশ মজা পেয়ে খেলা দেখতে লাগলাম । একটি ছোট বাচ্চাকে কাপড়ের শুইয়ে দিয়ে তার উপর একটি নানা রঙের কাপড় দিয়ে ঢেকে দেওয়া হল । একজন লোক দিয়ে কাপড়ের মাঝখান বরাবর উঁচু করে ধরিয়ে দিয়ে বিভিন্ন মন্ত্র পড়ার পর শুরু হল আসল যাদু । যাদুকর সবাইকে বার বার সাবধান করছিল হাতের জোড়া বাঁধন খুলে রাখতে । কাউকে জায়গা থেকে নড়াচড়া করতে বার বার নিষেধ করছেন । তারপর বাক্স থেকে চাকু বের করে কাপড়ের নিচের বাচ্চার পেটে ঢুকিয়ে দিলেন । ভেতর থেকে বাচ্চাটাও জোরে জোরে চিৎকার দিচ্ছে । আমার তো শরীরের সমস্ত পশম দাড়িয়ে গেছে । যাদুকর সবাইকে আহ্বান করছিল জায়গা থেকে না নড়ার জন্য, নড়লে মাথা ঘুরে পড়ে অজ্ঞান হতে হবে । একেবারে ভয়ংকর অবস্থা । তার পর যাদুকর আদেশ (!!) করলো যার পকেটে যা কিছু আছে সব সামনে ছুড়ে ফেলতে । কি আর করার ভয়ে বাজার করার জন্য আনা টাকাটা সামনে ছুড়ে মারলাম । আর দুরু দুরু বুকে বাড়ির দিকে রওয়ানা দিলাম খালি হাতে।

বর্তমানে কদিন ধরেই পত্রিকা মারফত জানতে পারলাম দেশের কিছু লোকের কিডনি, লিভার কেনাবেচার খবর । পাঠক মাত্রই সবাই এটা অবগত আছেন । আজকের খবরে প্রকাশ প্রায় ৫৮টি সিন্ডিকেট আছে এইসব ব্যাবসা করার জন্য । এই খবর আমাকে সেই ছোটবেলার ভয়ার্ত অনুভূতিটাই যেন স্মরণ করিয়ে দেয় । ছোটবেলায় যে ভয় কাজ করেছিল তা দূর হয়েছে যখন শুনেছি এটা সম্পূর্ণ ভুয়া ব্যাপার । আর এখন ? দেশের বড়বড় মেডিকেল নাকি এর সাথে যুক্ত । আর ক্রেতারা ? তাঁরা দেশের সব চাইতে পয়সাওলা লোক । আর যারা বিক্রি করছে তাঁরা হলেন সমাজের সব চাইতে দরিদ্র মানুষ । তাঁদের অভাব দূর হওয়ার আশায় তাঁরা বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়েছিল । অভাব দূর হয়নি কিন্ত ঋণের জন্য নিজের অঙ্গ বিক্রি করতে হচ্ছে । কি সাংঘাতিক ঘটনা!! বর্তমানে আইনের লোকেরা কিছু বিক্রেতা নয় কিন্ত বিক্রির জন্য সহযোগিতা করেছেন এমন লোককে গ্রেপ্তার করেছে । আমরা দেখতে চাই যারা এই অঙ্গ গুলো প্রতিস্থাপন করেছে তাঁদেরও বিচারের মুখোমুখি হতে, আর যাদের কারণে অঙ্গ বিক্রি তাঁদেরও দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি । যারা দেশের গরিব মানুষদের নিয়ে এমন খেলা খেলেছে তাঁদের শাস্তি হতে হবে সবার আগে । তা না হলে এই হাটবাজার বন্ধ করা সম্ভব না ।