ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

এলো বৈশাখ৷ প্রথম দিনটি সবার মনে উচ্ছল অনুভূতি জাগায় ঐতিহ্যের আয়োজনে৷ প্রকৃতির উপর থেকে বসন্ত তুলে নেয় আড়ি৷ সৌন্দর্যহীন বৃক্ষগুলো সাজে সদ্য কোমল নরম কচি পাতার মালায়৷ তৃষ্ণার্ত ধরণীর মেজেতে ফোঁটা বৃষ্টির জলে পিপাসা মেটায়৷ জেগে ওঠে বাড়ন্ত ভ্রুণ৷ মাথা তুলে দাড়ায় ধুলি কণার ফাকে থাকা সুপ্তবীজ৷

এ বৈশাখে আমি বড্ড ক্লান্ত৷ পিপাসায় কাতরায় মন৷ সুনশান নীরবতায় আধবোজা চোখে হাতরাই৷ হলদে গাঁদার বাগান রক্তাক্ত মনে হয়৷ ভূলতে গিয়ে আড়মোড়া দিয়ে ওঠে স্মৃতির মিনার৷ শরীর থেকে ঝড়ে রক্ত ঘাম ৷ গত বছরের প্রথম দিনটি আমাকে বোকা বানায়৷ সেদিন আমার জীবনে তুমি এসেছিলো, এক সুঁতোয় বেঁধেছিল তোমার আমার জীবন৷

অনাড়ম্বর আয়োজনে উপস্থিতি ছিল সৃষ্টা ও তার প্রিয় রাসুল আর আকাশ বাতাস৷ সেদিনই অনেক বড় একটা ঋণের বোজা কাঁদে দিয়েছিলে আমার৷ দশ লাখ একটাকা৷ যা শোধ না করতে পারলে পরম সুখের জান্নাতও মেলেনা৷ তবুও এ পার্থিব পৃথিবীর সুখের আশায় কোন রা বেড়োয়নি আমার মুখ থেকে৷ বরং বৈশাখের সুখের জন্য অনেক কেঁদেছি সৃষ্টিকর্তার কাছে৷ যে বৈশাখ দিলো আমাকে পূর্ণাঙ্গ পৃথিবী৷
মাত্র একটি বছর পর সেদিনের সে সকালের উপস্থিতিতে আমি হারিয়ে গেলাম কালো ধোয়ার অভিশপ্ত আলিঙ্গনে৷

তুমি আমার নেই৷ ধরে রাখতে পারিনি৷ অনেক দুরে চলে গেছো৷ কাউকে সঙ্গে নিয়ে৷ আমাকে করে গেছো প্রাণহীন৷ তবে খুব বেশি কাঁদিনা৷ আমাকে উচ্ছিষ্ট করে তোমার মুক্ত আকাশে সাথী করে নিয়েছো উচ্ছল এক সাঝের তারা৷ সে পৃথিবীতে তোমার সুখের ঝংকার থামবেনা কখনো ৷ এতে অনেক অ-নে-ক খুশি আমি৷

২৩.০৪.২০১২