ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

  • দেশ স্বাধীন হয়েছে কয়েক যুগ হয়ে গেল ! কিন্তু একটা প্রশ্ন সত্যিই থেকে যায় ! আমরা কি স্বাধীনতা চেয়েছিলাম ? নাকি শেখ মুজিবুর রহমান একটা অকৃতজ্ঞ জাতিকে স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন ? জাতিগত ভাবে আমাদের চরম শত্রু হলো পাকিস্তান ! আপনার পরিবারের কোন সদস্যকে কেউ যদি রেইপ করে অথবা খুন করে তাহলে আপনি তার সাথে কিংবা তার পরিবারের সাথে কোন সম্পর্ক রাখবেন ?? আপনি যদি মানুষ হোন তাহলে উত্তরটা হওয়া উচিত “না” ।
  • পুরো বাংলাদেশটা আমার কাছে একটা পরিবার, বাংলার সকল মানুষ এই পরিবারের সদস্য । ১৯৭১ সালে এই পরিবারের ৩০ লক্ষ মানুষকে পৈচাশিক ভাবে হত্যা করেছিল পাক হায়েনারা । দুই লক্ষ মা বোনের ইজ্জত হরণ করেছিলো ওই শুওরের জাতেরা , আর সহায়তায় ছিল রাজাকার , আলবদর, আল-শামস । এই ঘটনা কি ভুলা যায় ? আমরা যদি মনেপ্রানে বাঙালি হয়ে থাকি তাহলে বাংলাদেশের অস্তিত্য থাকা পর্যন্ত পাকিস্তানীদের ভালবাসতে পারবোনা। ওদের জন্য আমাদের মনে শুধুই ঘৃণা।

    কিন্তু এতটা বছর পার হয়ে গেলেও আমরা কি সত্যিই পাকিপ্রেম বর্জন করতে পেরেছি?

    শাহবাগে যেদিন রাজাকারের ফাঁসির দাবিতে হাজার হাজার মানুষ সমবেত হয়েছিল তারপর থেকেই এদেশের মানুষগুলো সরাসরি পাকি প্রেম দেখাতে সাহস একটু কম পায়। অনলাইনে কলমযোদ্ধাদের আন্দোলনের ফলে হয়তো ওরা এখন পাকী প্রেম কম দেখায়!

  • তবুও কি মানুষের মনের পরিবর্তন করা যায় ?
    হয়তো ওরা জাস্ট চেপে আছে, ভয়ে প্রকাশ করতে পারেনা কিন্তু মনে মনে ঠিকই পেয়ারে পাকিস্তান। সরকার বদল হলে দেখা যাবে মানুষের বাড়ি বাড়ি পাকিস্তানের পতাকা উড়ছে।
    এতকিছুর পরেও যখন দেখি কথিত কোন বাংলাদেশি পাকী প্লেয়ারদের সেঞ্চুরির ফলে আমাদের জাতীয় পতাকা উচিয়ে সম্মান জানাই তখন সত্যিই কেঁদে দিতে মন চাই !
    এদেশের কিছু মানুষ যখন স্টেডিয়ামে পাকি পতাকা নিয়ে, গায়ে পাকিস্তানের জার্সি দিয়ে স্টেডিয়ামে প্রবেশ করে তখন সত্যিই বেচে থাকার ইচ্ছাগুলো মরে যায় !
    এদেশের কিছু ললনা যখন স্টেডিয়ামে “Marry Me Afridi” প্লাকার্ড উচু করে তখন সত্যিই লজ্জ্বায় আমার মাথাটা নিচু হয়ে যায়, সেদিন মনেহয় দুই লক্ষ মা বোনের সম্ভ্রম হারানোটা বুঝি কোন কাজেই আসলোনা।
    বাংলাদেশের কোন সেলেব্রেটি যখন ফেসবুকে পোস্ট দেয় “Come on Pakistan, Perform Better” তখন মনেহয় আমরা বোধয় আজো পাকিস্তানেই আছি।
    ভারত পাকিস্তান ম্যাচে যেদিন বাংলার কিছু কুলাঙ্গার পাকিস্তানকে সাপোর্ট করে সেদিন ভাবি স্বাধীনতা যুদ্ধে আমাদের সহায়তা করে ভারত আসলেই অনেক বড় ভুল করছে।
    এই দেশটা আসলেই একটা আজিব দেশ !
    এ দেশে স্বাধীনতা বিরোধীদের বাঁচাতে আন্দোলন হয়, পেট্রোল বোমা মেরে সাধারণ মানুষকে পুড়িয়ে মারা হয় । এদেশের মানুষ এখনো বিশ্বাস করে যে চাঁদে কোন এক হুজুরকে দেখা গেছে !!
    বাংলাদেশে এখনো এমনও আছে যারা বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তানের ম্যাচে বলে
    “বাংলাদেশ ভাল খেলুক কিন্তু পাকিস্তান জিতে যাক”
    কষ্ট হয় ওইসব বীর সেনাদের জন্য যারা নিজের জীবন বিসর্জন দিয়ে এ দেশকে স্বাধীন করেছে, দুঃখ লাগে বাঙালী জাতির জনকের জন্য যিনি একদল অকৃতজ্ঞ মানুষের জন্য স্বাধীনতা সংগ্রাম করেছেন ।

    আজ ২৫ শে বৈশাখ কবি গুরুর জন্মদিনে তার একটা বিখ্যাত উক্তির কথা মনে পড়ে গেল ।

    “রাখিয়াছো বাঙালী করে মানুষ করোনি” ।
    আসলেই কবিগুরু ভুল কিছু বলেননি যেটা আজ আমরা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছি।

    বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তানের শেষ টেস্ট ম্যাচ চলছে। ওয়ান্ডে,টুয়েন্টি এবং একটি টেস্ট ম্যাচে আমাদের টাইগারদের পারফর্মেন্স ছিল আমাদের প্রত্যাশার থেকেও বেশি।

    শেষ ম্যাচে যদিও আমরা হারার দ্বারপ্রান্তে তবু বলবো আমরা এ ম্যাচ জিতে বিশ্বরেকর্ড করবো । ক্রিকেটে পাকিস্তানের সম্মানকে ধুলিষ্যাত করার লক্ষেই কাল টাইগাররা ব্যাট হাতে নামবে।