ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

একজন মায়ের কাছে তার সন্তান কতটা প্রিয়? এই প্রশ্নের জবাব পৃথিবীর সবচেয়ে বোকা মানুষটিও দিতে পারবেন। একবার ভাবুন, সেই মায়ের কোল থেকেই কেড়ে নিয়ে যদি তার শিশু সন্তানটিকে তারই সামনে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়, তাহলে সেই মায়ের মানসিক অবস্থাটা কেমন হবে?

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর এর খবর পড়ছিলাম। একটি দুঃখজনক খবরে চোখ আটকে গেলো। খবরটির শিরোনাম, “ট্রাকের ধাক্কা, মায়ের কোল থেকে পড়ে শিশুর মৃত্যু।”

এই ধরনের বেদনাদায়ক খবর বরাবরই আমাকে কষ্ট দেয়। তাই এধরনের খবর আমি বেশিরভাগ সময়ই এড়িয়ে যাই। তবে মাত্র দুই বছর বয়সের কোন শিশু সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে, তাও আবার মায়ের কোল থেকে পড়ে গিয়ে! ব্যাপারটা সরাসরি আমার কলিজায় গিয়ে আঘাত করলো। তাই হয়তো খবরটা এড়িয়ে না গিয়ে পড়তে শুরু করলাম।

খবরটা মোটামুটি এরকম: চট্টগ্রাম নগরীতে ট্রাকের ধাক্কায় রিকশা আরোহী নারীর কোল থেকে পড়ে গিয়ে তার শিশু সন্তান নিহত হয়েছে। নিহত মোজাম্মেল হোসেন (২) সিটি চট্টগ্রাম করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মী বিল্লাল হোসেনের ছেলে। শুক্রবার সকালে কোতোয়ালি থানার সিনেমা প্যালেস মোড়ে মালাবাহী একটি ট্রাক বিপরীত দিক থেকে আসা একটি রিকশাকে ধাক্কা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানায়। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

খবরটা পড়ে কয়েকটা প্রশ্ন মনটাকে খুব বেশি পোড়াচ্ছে! কি অপরাধ ছিলো শিশুটির? কেন দুনিয়াটাকে বোঝার আগেই তাকে ছাড়তে হলো দুনিয়ার মায়া? কেন নিজ সন্তনের মৃত্যু এভাবে দেখতে হলো একজন মমতাময়ী মাকে? কেন? কে জবাব দেবে?

এইসব বেপরোয়া ড্রাইভারদের ড্রাইভিং লাইসেন্স কে দেয়?

এমন ঘটনা যে শুধু আজকেই ঘটেছে, এমনটা কিন্তু নয়। বরং প্রতিনিয়ত ঘটছে এবং ভবিষ্যতেও ঘটার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে।

আচ্ছা, এর কি কোন প্রতিকার নেই? সরকারের সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। দয়া করে অযোগ্য ড্রাইভারদের লাইসেন্স দেয়া থেকে বিরত থাকুন। ত্রুটিপূর্ণ যানবাহনগুলো রাস্তা থেকে অপসারণ করুন। ট্রাফিক আইন মেনে চলে না, এমন ড্রাইভারদের লাইসেন্স বাতিল করুন। নেশা জাতীয় দ্রব্য সেবন করে এমন ডাইভারদের কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করুন। সর্বপোরি, সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নিন। আমরা কোন বয়সের মানুষকেই এরকম নির্মমভাবে আর অকালে হারাতে চাই না।