ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

স্যার/জনাব,

আমি দুঃখিত চিঠির প্রথমে সালাম-আদাব না দিয়ে শুরু করায়। প্রথমেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি কটু কথা বলে থাকলে। স্যার বাংলাদেশ নিম্ন-মধ্য আয়ের কাতারে হাত-পা ফেলায় আপনাদের দুইজনকেই জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা এবং দুঃখের সাথে জানাতে চাই আমার বাবা-চাচা-মামাদের আয় কিন্তু হুট করে না জানিয়ে এভাবে কোন কাতারে পৌছায় নাই।

শিক্ষাপিতা,

আপনি আমাদের জন্য অনেক কষ্ট করেন। হ্যাঁ আপনার কাজই হচ্ছে আমাদের জন্য এমন কিছু করা যেটা বর্তমানে আমাদের এবং ভবিষ্যতে দেশের কাজে আসবে। স্যার আমি সংক্ষেপে বলতে চাই আপনি প্রাথমিক শিক্ষার হার এখনও বাড়াতে পারেননি >> (প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার ২১ শতাংশ) << তবে হ্যাঁ… মাধ্যমিক এবং উচ্চ-মাধ্যমিক ফলাফলে আপনি বেশ সন্তুষ্ট। কিন্তু উচ্চ শিক্ষার জন্য আপনি কি কিছু করেছেন? জুন মাসে হয়ে যাওয়া বাজেটে আপনি শুধু হতাশ হয়েছেন আর কিছুই না।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এর ভ্যাট নিয়ে আপনার মাঝে তেমন কোন চড়াও-উতড়াও চোখে পরেনি। আপনাকে বলতে চাই আপনার সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্ধেক সিট থাকলে বাবা-মায়ের ঘাম ঝড়ানো, গ্রামের বাড়ির জমি বিক্রির টাকা দিয়ে বেসরকারিতে ঐ সকল ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি হত না। আপনি হয়তো শিক্ষামন্ত্রী হিসেবেই থাকতে চান তাই জোর গলায় কিছু বলছেন না। তবে আমরা আশা করি আপনি চাইলে এখনও অনেক কিছুই করতে পারেন।

অর্থপিতা,

স্যার কী দিয়ে শুরু করবো বুঝতে পারছি না। আপনার জ্ঞানের এক অংশও হয়তো আমার এখনও পূরন হয়নি। হঠাৎ করে কেন যেন মনে হচ্ছে আপনি শুধু সরকারি অথবা বেসরকারি না, আপনি সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপর অনেক ক্ষ্যাপা।

স্যার, আপনি কি আগে থেকেই জানতেন যে, বাংলাদেশ নিম্নমধ্য আয়ের দেশের কাতারে নাম লিখাচ্ছে আর সে জন্যই কি আমাদের মত গরীব ছাত্র/ছাত্রীদের কথা না ভেবেই বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে ভ্যাট ধার্য করেছেন? স্যার, আপনার তুলনা হয় না। কোটি লাখ টাকার বাজেটে শিক্ষায় মাত্র ৪ হাজার কোটি। আপনার এই দূরদর্শী পরিকল্পনায় কি কি হতে পারে তার শুধু লাভ এর অংশটাই হিসাব করেছেন ক্ষতির নামও নেননি।

এবার যারা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রেডিট ফি বেড়ে যাবার পরও ভর্তি হবে ভেবেছিল তারা অনেকেই পিছিয়ে যাবে আপনার আরোপ করা ভ্যাট এর জন্য। অনেকে ভর্তিই হবে না। অনেকের পড়ালেখা হয়তো এখানেই শেষ… ৭.৫% ভ্যাট যে কম না এটা হয়তো আপনি জানেন না।

এবার আসি যারা অধ্যায়নরত আছে তাদের কি অবস্থা হবে…

এইবার তো বাবা-মা কষ্ট করে চালিয়ে দেবে কিন্তু পরের সেমিষ্টার? টাকা পুরো-পুরি জোগার করতে না পারায় বেশিরভাগ বাবা/মাই প্রতিবার হিম-সিম খায় তবুও এই সেই করে ছেলে/মেয়ের মুখের দিকে তাকিয়ে চালিয়ে দেয় সেমিষ্টার কিন্তু এখন আবার আপনার নতুন আল্লাদ করা ভ্যাট যুক্ত হয়েছে তাই হয়তো অনেককেই এবার নিজ থেকে সেমিষ্টার Drop দিয়ে বসে থাকতে হবে।

কথাগুলো আপনার কাছে হাতে লিখে বানানো গল্পের মত মনে হচ্ছে অথবা মনে হতে পারে কোন বাংলা সিনামার ক্রিয়দাংশ বলছি কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে আমি নিজেই এর শিকার।

‘No Vat, গুলি কর’

গতকাল ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবিতে রাস্তায় নামলে পুলিশ তাদের উপর লাঠি চার্য করে শুনে অবাক হই রাবাট বুলেটও ছুঁড়েছে।আপনার উপর শিক্ষকদের আন্দোলন নিয়ে ‘অসংলগ্ন মন্তব্যের জন্য হুঁশিয়ারি না থাকলে আজও আপনি খুব সুন্দর একটা মন্তব্য করে ফেলতেন।