ক্যাটেগরিঃ সেলুলয়েড

 
old-boy-poster_2

প্রতিশোধের স্পৃহা যে একটা মানুষকে কতটা অমানুষ আর নির্মম করতে পারে তারই জ্বলন্ত উদাহরণ এই মুভিটি।মুভিটি দেখতে দেখতে প্রচন্ড রাগ আর ক্ষোভে আমার শরীরের রোমকূপ দাঁড়িয়ে যাচ্ছিল বারবার! যাদের হার্ট দূর্বল তাদের মুভিটি না দেখার জন্য অনুরোধ করছি।

মুভিটি বিভিন্ন ক্যাটেগরীতে ১৭টি পুরস্কার জিতেছে। এই লিঙ্ক থেকে পুরস্কার সম্পর্কিত তথ্য জানতে পারবেন। এর IMDB রেটিং ৮.৪! এবং IMDB TOP 250 মুভি’র মধ্যে এটি ৯৩ তম!

মুভিটি দেখেছিলাম দিন কয়েক আগে, কিন্তু এখনো আমার মাথা পুরা হ্যাং হয়ে আছে। এখনো আমার মাথার মধ্যে ঘুরপাক খাচ্ছে যা আর কোনো মুভির বেলাতে হয়নি! পরিচালক তার কাজটি যে কত নিখুঁত ভাবে করেছেন তা নিজের উপর নিস্ফল রাগ আর ক্ষোভ থেকেই বুঝতে পারছিলাম। কোনো কারন দর্শানো ছাড়াই একটি লোককে কিডন্যাপ করে একটি বাড়িতে জেলখানার কয়েদীর মত করে বন্দী করে রাখা হয়। এবং দিনের পর দিন বিভিন্ন রকম টর্চার হতে থাকে তার উপর। লোকটা জানে না কী কারনে, কী অপরাধে তাকে বন্দী করা হয়েছে।

প্রশ্নের উত্তর না জেনেই একে একে কাটতে থাকে দিন-মাস-বছর…কারো কাছ থেকে উত্তর না পেয়ে সে এক সময় তার অতীত অপরাধ আর ভুলগুলো লিখতে শুরু করে, তার শাস্তির কারন জানতে। কিন্তু তারপরও সে এতবড় শাস্তির কোন কারন খুঁজে পেল না। এভাবে আরো কয়েকটি বছর কেটে যায়। এবার তার ভিতর আস্তে আস্তে দানা বেধে ওঠে প্রচণ্ড ক্রোধ। প্রতিশোধের নেশায় সে নিজেকে তৈরী করতে থাকে কঠিন এক মানুষে।

সে প্রতিজ্ঞা করে, এখান থেকে মুক্তির পর তাকে বিনাদোষে যে আটকে রেখেছে তাকে খুঁজে বের করবে এবং তার শরীরের প্রতিটা অঙ্গ আলাদা আলাদা করে কেটে প্রতিশোধ নেবে। এভাবে দীর্ঘ ১৫টি বছর পর সে মুক্তি পায় অসহনীয় বন্দীদশা থেকে। সে তখন বাস্তবতার কঠিন ধাতুতে গড়া সম্পুর্ন অন্য এক মানুষ। এবার বহুদিনের সেই আকাঙ্ক্ষিত প্রতিশোধ নেবার পালা…!

দর্শক! আপনার মাথা হ্যাং হবার সময় সামনে এসে গেছে! আপনাকে আর সামনে না এগোতে বিনীত অনুরোধ করছি! কারন মুভিটির শেষে যে টুইষ্ট টি পরিচালক রেখেছেন, তা আপনার পক্ষে সহ্য করা অসম্ভব! এই শক কোনো মনুষ্যপ্রানীর পক্ষেই সহ্য করা সম্ভব নয়। তারপর ও সাহস থাকলে এই লিঙ্ক থেকে ডাউনলোড করে নিন।
সাবটাইটেল সাথেই দেওয়া আছে তাই বুঝতে সমস্যা হবে না।

পোস্টটি ফেসবুকের ডাউনলোড জোন গ্রুপটি তে সর্বপ্রথম প্রকাশিত হয়েছে।