ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

ক’দিন ধরেই বৃষ্টি হচ্ছিল। কিন্তু আজ সকাল থেকে বৃষ্টি নেই। আসবে আসবে করেও বৃষ্টি আসল না। উল্টো ঝলমলে রৌদ্র উঠে গেল। তবে চারদিকে শীতল একটা পরিবেশ বিরাজ করছে। তাই ঘর হতে বের হবার সময় ছাতা নিলাম না। কিছুদূর যেতে না যেতেই আরোও কড়কড়ে রোদ উঠে গেল। তখন গরমে শরীর থেকে ঘাম ছুটিয়ে দিল।

কী আশ্চর্য! কিছুক্ষণ পরই ঝরঝর করে বৃষ্টি নেমে পড়ল। ভিজে সারাটা শরীর তখন একাকার। আশে পাশে কোন ছাউনিতে গিয়ে আশ্রয় নেওয়ারও সুযোগ মিলল না। এমনিতে বৃষ্টিতে ভিজতে ভালো লাগে। এইতো সেদিনও বৃষ্টিতে ভিজার জন্যে ঘর থেকে বেরিয়েছিলাম। কিন্তু হলো না। ঘর থেকে বের হতেই বৃষ্টি থেমে গেল। ভিজা হলো না।
কিন্তু আজ। আজ অফিসে যাবার জন্যে ফিটফাট হয়ে ঘর থেকে বেরিয়েছিলাম। বেরিয়েই একদম কাকভেজা ভিজলাম। অল্পস্বল্প ভিজলে হয়তো কোনমতে অফিসে চলে যাওয়া যেত। পুরো জামাকাপড় ভিজে একেবারে হ-য-ব-র-ল অবস্থা। ভেজা শরীরে এখন কিভাবে অফিসে যাবো? এদিকে অফিসে যাবারও সময় হয়ে গেছে।

আকস্মিক এই বৃষ্টিতে শুধু কি আমি ভিজেছি, আরো অনেকেই ভিজেছে। স্কুল পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী থেকে শুরু করে বড়রাও এই বৃষ্টিতে ভিজে একাকার। ভিজা শরীরে তাঁরা কিভাবে এখন ক্লাশে যাবে? ভাগ্যিস, আমার বাসা কাছাকাছি অবস্থিত। একেবারে ভার্সিটি ক্যাম্পাসের ভেতরে। আমি বাসায় ফিরে এলাম।

অবাক কান্ড! বাইরে তাকিয়ে দেখি, বৃষ্টি একেবারেই নেই। মানে বৃষ্টি থেমে গেছে। তবে রোদ তখনো উঠেনি। তাহলে বৃষ্টি কি আজ আমার সাথে রসিকতা করল? আমি পুনরায় প্রস্তুতি নিয়ে অফিসে গেলাম।