ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

 

বই মেলা আমাদের প্রাণের মেলা। ভাষার মাস ফ্রেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হওয়া মেলাটির প্রতি মানুষের ভালোবাসা অপরিসীম এবং অন্যরকম। কারণ এ মাসেই এদেশের শ্রেষ্ট সন্তানরা মাতৃভাষার জন্য সংগ্রাম করে শহীদ হয়েছেন। আমরা তাঁদের জন্য গর্বিত ও শ্রদ্ধার সাথে তাঁদের স্মরণ করছি। জাতি চিরদিনই তাঁদেরকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে। পরবর্তীতে বাংলাভাষা আমাদের মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পায় এবং এখন এই ভাষাটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা। সুতরাং এ মাসে অনুষ্ঠিত মেলার প্রতি মানুষের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা থাকাবে এটাই স্বাভাবিক। এটা খুবই ভালো লক্ষণ যে, মেলায় প্রচুর লোক সমাগম হচ্ছে। মেলায় সবাই যে বই কিনছে- তা নয়, তবুও মানুষ যে বইয়ের সংস্পর্শে আসছে এটা আমাদের জাতির জন্য আশাব্যঞ্জক খবর। এর মধ্যে থেকেও কিছু নতুন পাঠক সৃষ্টি হচ্ছে এবং হবে। বইয়ের প্রতি মানুষের ভালোবাসা বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং পাবে। মেলা থেকে মানুষ বই কিনুক, বই পড়ুক এটা আমাদের সকলের কাম্য। কিন্তু এ মেলাটি শুধু রাজধানী ঢাকা কেন্দ্রীক। এর ফলে রাজধানী ঢাকার লোকজন এ মেলায় সহজে যেতে পারছে এবং নতুন নতুন বইয়ের পাঠক হতে পারছে এবং বই পড়ছে। আমরা যারা ঢাকার বাইরে অর্থাৎ দেশের অন্যান্য জেলায় বসবাস করি তারা এ মেলায় সহজে অংশগ্রহণ করতে পারছি না। এর কারণ দূরত্ব। কেউ কেউ দূর-দূরান্ত থেকেও (দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে) মেলায় অংশ গ্রহণ করছে এবং বই কিনছে, বই পড়ছে। কিন্তু এদের সংখ্যা খুবই কম।

নতুন নতুন বই দেশের বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে বিভিন্ন জেলায় মেলার আয়োজন করলে পাঠক সংখ্যাও বাড়বে আবার দেশের সবাই এ সুযোগটি গ্রহণ করে নিজেকে শানিত করতে পারবে। তাই বই মেলা দেশের সকল জেলায় আয়োজন করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে উদ্যোগী হওয়ার আহবান জানাচ্ছি। আর এই মেলাটি আমাদের মহান ভাষার মাস ফ্রেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হতে পারে।

দেশের অগণিত পাঠকের কথা বিবেচনায় রেখে দেশের সকল জেলায় বই মেলা হউক এটাই আমরা চাই।

বই মেলায় আসুন, বই কিনুন। নিজেকে আলোকিত করুন। বই মেলার সমৃদ্ধি কামনা করছি।