ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

আবার হরতাল? মঙ্গলবার আবারো হরতাল ডেকেছে বিএনপি। একজন রাজনৈতিক নেতা আজ প্রায় ছয়-সাতদিন ধরে নিখোঁজ। কেউ কোথাও খুঁজে পাচ্ছে না। ইলিয়াস আলী তো অন্যসব সাধারণ মানুষের মতো নন যে, তাকে কেউ চিনতে পারে না। এই রাজনৈতিক নেতাকে বা যেকোন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকে মিডিয়ার কল্যাণে দেশের প্রায় সবাই চিনতে পারে। তারপরও কেন তাকে কোথাও কেউ খুঁজে পাচ্ছে না? তাহলে অন্য যেকোন সাধারণ মানুষ কেউ গুম বা নিখোঁজ হলে তো তাঁর খোঁজ বা পাত্তাই পাওয়া যাবে না। এটা কি আমাদের কারো জন্য শোভনীয়?

একজন রাজনৈতিক নেতা নিখোঁজ হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে দেশে দিনের পর দিন হরতাল হচ্ছে। কোটি কোটি মানুষ প্রায় জিম্মিই হয়ে পড়েছেন। গত চার-পাঁচ দিনে এ পর্যন্ত চারজন লোক নিহত হয়েছেন এবং বহু লোক আহত হয়েছেন। দেশের মানুষ জরুরি প্রয়োজনেও ঘর থেকে বের হতে পারছেন না। গুম, হত্যা এবং হরতালের রাজনীতি আর কত দিন চলবে?

একজন রাজনৈতিক নেতাকে নিখোঁজ বা গুম করে কার লাভ হচ্ছে? আর এর ফায়দা কারা নিচ্ছে বা নিবে? দেশের মানুষকে এভাবে জিম্মি করে- অবশেষে কি কেউ ফায়দা নিতে পারবে?

একজন রাজনৈতিক নেতা যদি এভাবে নিখোঁজ হয়ে যান, যদি আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী তাকে খুঁজে বের করতে না পারেন তাহলে দেশের সাধারণ মানুষ স্বাভাবিকভাবেই আতংকিত হয়ে পড়বে। কখন কে গুম হয়ে যায় এই আতংক সবার মধ্যে বিরাজ করবে। আর এটা যদি হয় তাহলে দেশের আইনশৃংখলা বাহিনীর প্রতি কি মানুষের আস্থা থাকবে?

সুতরাং অবিলম্বে এই রাজনৈতিক নেতাকে খুঁজে বের করার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবী জানাচ্ছি। কারণ যে লক্ষণ দেখছি, তাতে মনে হচ্ছে- এই রাজনৈতিক নেতাকে যতদিন পর্যন্ত পাওয়া যাবে না বিরোধী দল হয়ত ততদিন পর্যন্তই হরতাল দিতে থাকবে। আর এই হরতালের কারণে হয়ত আরো বহু মানুষ মারা যাবেন। আরো বহু পরিবার হয়ত নি:স্ব হবেন। আরো বহু মানুষ হয়তো সন্তান হারা হবেন, পিতৃহারা হবেন, মাতৃহারা হবেন, স্বামীহারা হবেন, স্ত্রী হারা হবেন। যেটা আমরা কেউ চাই না।

গতরাতে একটি টকশোতে শুনলাম একজন বলছেন- ‘গুম হচ্ছে সবচেয়ে নিকৃষ্টতম অপরাধ। কোন হত্যাকাণ্ড ঘটলে অন্তত লাশ পাওয়া যায়, তার জন্য প্রার্থনা করা যায়, তাকে দাফন বা সৎকার করা যায়। কিন্তু গুমের ক্ষেত্রে লাশও পাওয়া যায় না। যিনি গুম হন তার ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যায় না, তিনি জীবিত নাকি মৃত।’ এটা আসলেই ভয়ংকর। এগুলো চলতে পারে না। এগুলো থেকে অবশ্যই আমাদেরকে বেরিয়ে আসতে হবে। কোন গুমই আমাদের জন্য শুভ নয়। আর কোন রাজনৈতিক নেতা গুম গণতন্ত্রের জন্য এমনকি দেশের জন্য কি শোভনীয় হতে পারে?