ক্যাটেগরিঃ চারপাশে

মিছিল। রাজনৈতিক দলের নয়। মৃত্যুর মিছিল।গত দুদিন চেষ্টা করেও এই মিছিলের জন্য শোক জানানোর কোন ভাষা আমি খুঁজে পাইনি। জীবিকার অন্বেষনে এসে জীবনের অরুণোদয়ের আগেই অস্তগামী হয়ে গেল জীবন নিয়ে সংগ্রমী এই মানুষগুলো। জীবনের কাছে হার না মানার জন্যই এখানে এসেছিল ওরা, কিন্ত মৃত্যুর কাছে হেরে গেল কিছু অপরিণামদর্শী কর্পোরেটদের লোভের কারনে।
মৃত মানুষগুলোর জন্য যারা আর্থিক সাহায্য দিচ্ছেন দয়া করে এই সাহায্যকে “ক্ষতিপূরণ” বলবেন না কারন ঐ পরিবারগুলোর কাছে এই ক্ষতি কোনদিন পূরন হবার নয়।আপনারাও তা পূরন করবেন না অতএব সাহায্য বলুন।

গার্মেন্টস এ প্রায়ই আগুনে পুড়ে মানুষ মারা যায় কারন হিসাবে দেখানো হয় অপরিকল্পিত ভাবে কারখানা তৈরী,পানির জন্য জলাশয়ের অভাব,সংকীর্ণ রাস্তার কারনে ফায়ার ব্রিগেডের গাড়ী ঢুকতে পারেনা। এসব সমস্যা নিয়ে যখন গার্মেন্টস তৈরী হয় তখন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোথায় থাকেন?তদন্ত শেষে দয়া করে এসব কাহিনী না বলে অন্য কাহিনী বলুন।

এদেশে মানুষ আগুনে মরবে,ফ্লাইওভারের গার্টার ভেঙে মরবে,জাহাজডুবিতে মরবে,স্বজনরা আহাজারি করবে,সেই আহাজারি লাশের গন্ধের সাথে বাতাসে মিলিয়ে যাওয়ার আগে আবার অন্য কোথাও লাশ গন্ধ ছড়াবে।এদেশে কারও কাছে বিচার চেয়ে লাভ নেই। সৃষ্টি কর্তার কাছেও চাইব না ।

সৃষ্টিকর্তার কাছে শুধু এইটুকু প্রার্থনা, তোমার সুখের ঘরে তাদের একটু ঠাঁই দিও।