ক্যাটেগরিঃ ব্লগ

আমাদের সন্তানেরা আজ রাস্তায়। উত্তোলিত ইস্পাতকঠিন মুষ্ঠিবদ্ধ হাত,মুখে শ্লোগান, জয়য়য়য় বাংলা। আমাদের স্বাধিনতার শ্লোগান।১৯৭৫ থেকে পরিকল্পিতভাবে চেষ্টা চলছে এই স্বাধিনতার শ্লোগানকে মানুষের মুখ থেকে কেড়ে নেওয়ার জন্য।এই শ্লোগানকে তাদের অনেক ভয়! এই শ্লোগান যে মানুষকে উদ্দীপ্ত করে তোলে স্বাধিনতার মর্যাদা সমুন্নত রাখার জন্য। তরুন প্রজন্মকে স্বাধিনতা বিরোধিরা সেই শ্লোগান ভুলাতে পারেনি বরং স্বাধিনতা যুদ্ধের চেয়ে আরও বেশী জোরে উচ্চারিত হচ্ছে সেই শ্লোগান।আরও বেশী কন্ঠ থেকে উচ্চারিত হচ্ছে এই শ্লোগান। আরও বেশী গগণবিদারি।
এই শ্লোগান শাহবাগের প্রজন্ম চত্বর হয়ে প্রকম্পিত হচ্ছে বাংলাদেশ ছাড়িয়ে সারা বিশ্বে। অন্তরাত্মা কেঁপে কেঁপে উঠছে রাজাকার-আলবদরদের আর তাদের পুনর্বাসনকারিদের। এই জামাত-শিবির ও তাদের পুনর্বাসনকারিরা ক্ষনে ক্ষনে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তরুন প্রজন্মের এই স্বাধিনতার চেতনাকে রাজনীতির কালিমার মোড়কে আবদ্ধ করতে কিন্তু প্রতিবারই সেই কালিমা বুমেরাং হয়ে ফিরে গিয়ে চুনকালি মেখে দিচ্ছে তাদের আপাদমস্তকে।
বেসামাল স্বাধিনতা বিরোধি আর তাদের দোসররা। ৭১ এর বারুদ আজ তরুন প্রজন্মের রক্তের সাথে মিশে গেছে।

এই শাহবাগে আমরা আমাদের জীবনের শ্রেষ্ঠ দৃশ্যটি দেখে ফেলেছি। সবচেয়ে সুশৃঙ্খল আন্দোলনটি দেখে ফেলেছি। তারুন্যের সবচেয়ে সুন্দরতম রূপ আমরা দেখছি।আমরা দেখছি মানবতাবিরোধীদের মানুষ কত প্রচন্ড ভাবে ঘৃনা করে।
আমরা শুনছি আমাদের স্বাধিনতার শ্লোগান,আমাদের অস্তিত্বের শ্লোগান,আমাদের প্রানের শ্লোগান,যে শ্লোগান যুগ থেকে যুগান্তরে,কাল থেকে কালান্তরে বয়ে নিয়ে চলছে আমাদের নির্ভিক রাজনীতিবিমূখ তরুন প্রজন্ম।
শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে তারুন্যের সরব উপস্থিতি তার সাক্ষী।
জজজজজয়য়য়য়য় বাংলাআআআআ।কাদের মোল্লা রাজকার,নিজামি রাজাকার,মুজহিদ রাজাকার,রাজাকার সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরি সহ সকল যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসি চাই-ই-চাই।