ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

পবিত্র রমজান মাস আসার সাথে সাথে ঢাকা শহরে ভিক্ষুকদের সংখ্যা মারাত্মকভাবে বেড়ে যায়। এটা আজকাল ঢাকা শহরের একটা ঐতিহ্য হয়ে যাচ্ছে। প্রতিটি রাস্তার মোড় এবং সিগনালগুলোতে এদের সংখ্যা অনেক বেড়ে যায়। ২০১২ সালের বাজেট ঘোষনায় ঢাকা মহানগরীর ভিক্ষুকদের পুনর্বাসনের জন্য ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রশ্ন হলো এই বাজেট ঘোষনার বাস্তবায়নের জন্য সরকারের অগ্রগতি কতটুকু। সমাজের অনগ্রসর-দলিত-হরিজন-বেদে-হিজড়া সম্প্রদায়ের জীবনমান উন্নয়নেও ১৪ কোটি ৬১ লাখ টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেন।

এ ধরনের উদ্যেগ বাংলাদেশের ইতিহাসে আগে কখনো নেওয়া হয় নাই। এবার ফাইন্যান্স মিনিস্টার এই উদ্যেগ নিয়েছেন। এজন্য তাকে সাধুবাদ জানাতে হয়। কিন্তু বাজেট ঘোষনার পর এসব বরাদ্দকৃত অর্থ এর সদ্ব্যবহারের সঠিক কোনো নিউজ এখনো পাইনি। সাংবাদিক ভাইয়েরা তো সাগর রুনি, হুমায়ূন আহমেদ, শাওন, নুহাশপল্লীতে পদ্মাসেতু, আবুল নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। ভিক্ষুকেরা রাস্তায় ভিক্ষা করার সময় কখনো ভিক্ষা পায় আবার কখনো খায় গালি। আসলে এই ছিন্নমূলদের নিয়ে ভাবার সময় অথবা মাথাব্যথা আমাদের কারো নেই। তারপরও সরকার সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে এমন একটি ভালো উদ্যেগ নিয়েছে তা যেনো অবশ্যই বাস্তবায়ন হয়। ভিক্ষুকের খাবার যেনো চোরে নিয়ে না যায়।