ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

হরতাল এর নামে দেশে যে গৃহযুদ্ধ শুরু হয়েছে এর শেষ কোথায়; বোধকরি আমাদের কারো জানা নেই। এর সমাধান রয়েছে রাজনৈতিক নেতাদের কাছেই। কিন্তু তারা জনগনের জন্য কখনো এই ত্যাগ স্বীকার করেনি; করবেও না। তাই নিরুপায় হয়ে আমি বিডিনিউজ এর মাধ্যমে জিয়া তনয় তারেক জিয়া এবং হাসিনা পুত্র সজিব জয়কে জনগনের স্বার্থে এগিয়ে আসার আহবান জানাচ্ছি। পুরানো ঝগড়া ভুলে এক টেবিলে বসে সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। দুজনেই এখন দেশের বাইরে। তাদের একত্রে মিলিত হতে কোনো বাধা নেই। কা জানে দেশের স্বার্থে এক টেবিলে বসলে হয়ত তাদের অন্নান্য রাজনৈতিক সমস্যাও সমাধান হতে পারে। দেশের উন্নতি দুই দলের আমলেই দেখেছি কেমন হয়েছে। সেটা নিয়ে আর না ই বলি। কিন্তু হরতাল এর মত আত্মবিধ্বংসী অস্ত্র এই মুহুরতে আর আছে কিনা আমার অন্তত জানা নেই।

কাজেই সন্মানিত তারেক জিয়া এবং সজিব ওয়াজেদ জয়, ” আপনারাই এখন দেশের মা বাপ। আপনারাই পারেন ইচ্ছে হলে এই বিপদ থেকে উদ্ধার করতে। আমরা মিজেরা ব্যর্থ এই সমস্যা উত্তরনে। আমাদের প্রজন্ম একজন নেতা পয়দা করতে পারলনা। কাজেই আমাদের পরীক্ষিত পুরাতন নেতাদের পুত্র দের দিকেই তাকিয়ে থাকতে হবে। একজন তাজপুত্র মাথার তাজ ফেলে পালিয়েছেন। একজন দেশ থেকে নিরবাসনে আছেন আরেকজন দূরে বসেই নিজের মা আর দেশের অবস্থা অবলোকন করছেন। এভাবে চলতে পারে না। এভাবে চলতে থাকলে ইতিহাস আপনাদের ক্ষমা করবে না। একসময় ইতিহাসের আস্তাকুরে নিক্ষিপ্ত হবেন। পুরনো ময়লা ঘেটে কেনো আপনারা আমাদের কস্ট দেন। বুড়ো রাজনীতিবিদেরা নিজেদের পুরনো কেচ্ছা কাহিনী, ব্যবসা, আতম্ভরিতা ইত্যাদি নিয়ে ব্যস্ত আছেন। দেশের জনগনের কস্ট দেখার সময় কই তাদের।

কাজেই আপনাদের দাদা, বাবা আপনাদের যে সু্যোগ করে দিয়ে গেছেন সেটা কাজে লাগান। আপনাদের ইচ্ছে হয়না এদেশের উন্নতি করতে? হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করতে? দেশের ১৬ কুটি মানুষের মনে জায়গা করে নিতে? আপনাদেরকে আমাদের মত জনগনেরাই মাথায় তুলে রাখবে। ভাবুন। একবার পোড়াকপাইল্লা দেশটাকে নিয়ে ভাবুন।