ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

কিছুটা বলব না , অনেকটা আমার ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ এই লেখাটা শুরু। বিষয়টা খুবই কমন হয়ে গেছে আমাদের মধ্যে । ধরেন যে কোন একটা ঘটনা ঘটল কিংবা ঘটবে , প্রথমে আমরা দুই ভাগ হই , হয়ে ঘটনা কম জানি আর বেশি জানি পাল্টাপাল্টি বক্তব্য শুরু করি। এমনকি ঘটনাটা দেশের জন্য ভাল হইলেও। আমি দুই একটা উদাহরণ দিলে ব্যাপার ক্লিয়ার হয়ে যাবে।

কিছুদিন আগের একটা খবর , বনানী তে একটা ইলেক্ট্রিক্যাল ওভারব্রিজ হচ্ছে , কি সুন্দর একটা নিউজ। কত বৃদ্ধ , ডিসেবল্ড মানুষ বিনা কষ্টে রাস্তা পারাপার করতে পারবে , ভেবেই ভাল লাগছিল ! এই ঘটনাতেও যে দেশ দুই ভাগ হওয়ার সম্ভাবনা আছে , ওইদিন ফেসবুক , ব্লগে না বসলে জানতামই না। যাদের সব কিছুতেই না বলা স্বভাব, তাদের কেউ বলছিল , দুই দিন ও টিকবেনা , আমাদের ট্যাক্সের টাকা অপচয় , দেশের প্রাইমারী স্কুল গুলোতে ছাদ নাই , ব্যর্থ সরকার, টাকা মারার চেষ্টা আরও কত কি… আমি এইগুলা পড়ি আর হতাশ হই !

কয়েকদিন আগে ,একত্রে জাতীয় সঙ্গিত গাওয়ার ব্যাপারটায় (গিনিস ওয়ার্ল্ড রেকোর্ডস এর জন্য) , আগে বলা শুরু করছিল কেনো এত অপচয় ? দেশের মানুষ খাইতে পারছে না আর এইখানে দেশের টাকা অপচয় । হায়রে আবেগ ! কে জানি আবার অতিরিক্ত আবেগে লিখছিল বাংলাদেশের অনেক প্রাইমারী স্কুলে নাকি ছাঁদ নাই ! আরে ভাই, আপনার জন্য বলছি, টাকাটা দেশের ভিতরেই খরচ হইছে , দেশের কিছু মানুষের এর পেটেই সেদিন টাকা টা পরছিল । কেউ হয়তবা প্যান্ডেল টাঙাইছে , কেউ খাবার বানাইছে , কেউ বাশ গাড়ছিল কেউ পতাকা বানাইছিল। পরে যখন দেখল যে , বিরোধিতা করে লাভ হয় নাই, গান ত গেয়েই ফেলল , এখন কি করা যায় ?? গেল গিনিস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস এর ওয়েবসাইটে , দেখল আমাদের এইটা নাকি রেকর্ড বুকে যায়গা পায় নাই । আবার আলোচনা শুরু হইল টাকা অপচয় , এই সেই পুরনো আলোচনা। যাই হোক পরে থামছে যখন সরকার নিজ থেকেই প্রচার শুরু করল আমরা রেকর্ড করছি । আমার তখন ওই লোকগুলা ডাক ফেস দেখার খুব ইচ্ছা ছিল !

এইবার তাদের নিয়ে কিছু বলি , যারা ফেসবুক আর ব্লগে সুশিল হতে চায় ! আরে ভাই , সুশিল হওয়া , এই ব্যাপারটা ত জোড় করে হওয়া সম্ভব না । আপনি জোর করে যেটা পারবেন , সেটা হচ্ছে অন্যের এটেনশন নিতে পারবেন সর্বোচ্চ । তখন হয়ে যাবেন এটেনশন সিকার ! যাই হোক মূল আলোচনায় আসি, আল্লামা শফি , আস্তিক-নাস্তিক বিষয়ে কোথায় যেন কি বলছে , আমি একবার পড়ে ইগ্নোর করছি ! সব খবরই ত পড়ি । জানা থাক্ল আর কি। কত ক্ষন পরে দেখি, ফেসবুক আর ব্লগে তুলকালাম চলছে। দেশের বিখ্যাত(তথাকথিত) ব্লগার , ফেসবুকার এই ঘটনাকে ধরে মুসলিম খারাপ , অমুক খারাপ , তমুক খারাপ , আস নাস্তিক ভাইরা এক হই অনেক কাহিনী ! শফি হুজুর, যে পরিমান হেট স্পিচ ছড়াইছিল , তথাকথিত জনপ্রিয় ব্লগার কি এর চেয়ে কম কিছু করল ? যারা যারা ঘটনাটা জানত না , ভালভাবে জানল, ওই স্ট্যাটাসের কমেন্ট গুলা দেখলাম , কিছু কমেন্ট করতেছে , ওই নাস্তিক তুই মর , নাস্তিকের ফাসী চাই , মুসলিম খারাপ অমক খারাপ , আসেন নাস্তিক ভায়েরা আমরা এক হই। আমি পড়ি আর হতাশ হই । আস্তিক, নাস্তিক এই ধরনের শব্দ গুলা লিখতে আমরা খুবই কষ্ট হচ্ছে । আরে ভাই , এত ডিভাইডেশন ক্যান ? আমরা ত বাঙালী , এই পরিচয়টাই কি যথেষ্ট না ? অন্য দেশের মানুষ যদি খালি বাংলাদেশে না এসে শুধু শেষ এক মাসের ফেসবুক স্ট্যাটাস পরে , তাহলে ভাববে আরে , এই দেশে ত শান্তি নাই খালি ঝগড়া বিবাদ , বিশ্বাস করেন ,আমার কাছে প্রমাণ আছে।

ধর্ম একবারে পার্সোনাল একটা বিষয় , আমি মুসলিম , আমি অন্য ধর্ম সম্পর্কে খুব একটা জানি ও না । আমার ধর্মে যেটা বলা আছে , অন্যের ধর্মের উপর কখন ও জোর-জবরদস্তি করো না। যার যে ধর্ম ভাল লাগে সে সেটাই পালন করে সৎ , সাহায্যকারী হইলেও ত হইল। শুধু এই জিনিস টা মাথা থাকলেও ত হয় । আমি কারও ক্ষতি করব না ! যার কোন ধর্মই ভাল লাগে না , না লাগুক এইটা তার ব্যাপার । কেন যে তাকে গালাগাল দিতে হবে ,এটা আমার ছোট মাথায় ধরে না । আবার ওই লোক ও যদি অন্য ধর্ম বিশ্বাসী মানুষ দের ধর্ম নিয়ে ক্ষোটা দেয় , শুধু শুধু কুৎসা কিছু ছড়ায়, দাঙ্গা হাঙ্গামা ত আমরা আমরা করেই মরে যাব , বিজেপি’র আর আসতে হবে না ।

বোধ হয়, আরিফ আর রহমান ভাইয়ের একটা লেখা পড়ছিলাম , হরতালের কথা পেপারে না আসলেই ত হয় ! কেউ জানল না হরতালও হইল না। পড়ে খুবি আশাবাদী হইছিলাম যদিও ব্যাপারটা অসম্ভব ! অন্য যে খারাপ বিষয় গুলি , অন্তত আমরা সেইগুলা শেয়ার করা বন্ধ করি , নিজেদের কে বিশ্বাস করি । একটা লোক জঙ্গি , সন্ত্রাসী , পথভ্রষ্ট আস্তিক-নাস্তিক হইতে পারে ত আমার কি ? তার কথাটা শুনি , পছন্দ না হইলে বুঝাই । সে যদি না বুঝে,  তাইলে ত আর কিছু করার নাই , এটা তার ব্যাপার । শুধু শুধু লোক জড় করে আরও ২০ জনকে জানানোর ত কোন মানে নাই , যে ও খারাপ । কারন ওই খারাপ লোকটাও হয়তবা ভাবতেছে তুমি খারাপ সে যদি তোমার মত ২০ জনরে জড়ো করে, লাভ কার হইল ? দুই জনেরই ত লস !

আসেন একটু সহিষ্ণু হওয়ার চেষ্টা করি , চিল নিয়ে গেছে কান , এই কারনে চিলের পিছনে না দৌড়াইয়া একটু ভাবি ।
আমি খালি ভাবি , এই লোকগুলা কি করত যদি , ফেসবুক ব্লগ না থাকত ? তারা কি মাইক নিয়া রাস্তায় দাড়ায়া হেইট স্পিচ ছড়াইত না অন্য কিছু ??

খুব শিঘ্রই , হয়তোবা আমরা সোনার বাংলা পাব , যেখানে থাকবেনা কোন ভেদাভেদ আর জাতিগত বিভাজন ।

“ধরণী তোমার সন্তানেরা আজ পথভ্রষ্ট ,
দাও বলে কোন উপায় , আবার মিলিব মোরা ,
ফেলে দিয়ে যা আছে সব পচা আর নষ্ট ! ”