ক্যাটেগরিঃ মানবাধিকার

সংযুক্ত ছবিগুলি দেখলে যেকোন শক্ত হৃদয়ের মানুষও থমকে যায়, যে সব ছবি গুলি বিশ্ব মানবতাকে প্রশ্নের সম্মুখিন করেছে । মানুষের মানবিক মূল্যবোধ এতটাই প্রখর যে, পশুকেও বাঁচাতে মানুষ নিজের স্তনপান করাতে কার্পণ্য করেন না। সেই মানবিকগুনের মানুষগুলি যখন মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িয়ে পড়েন, তখন মানবতা প্রশ্নের সম্মূখিন হয়। বিশ্বের সকল মানুষের মানবিক গুনাবলি জাগ্রত হউক।

আয়লান, ভুমধ্যসাগরের নিথর দেহ

 ছবি: আয়লান, ভুমধ্যসাগরের নিথর দেহ

আয়লান, ভুমধ্যসাগরের দৃশ্য

ছবি: আয়লান, ভুমধ্যসাগরের দৃশ্য

11150166_133374627008928_4006515788023041825_n

ছবি: আফ্রিকার এক মা, তার শিশুর পাশাপাশি পশুকেও স্তন পান করাচ্ছেন।

11825137_1602058700059339_7973547012451949005_n

ছবি: রাজন হত্যা, চুরির অপরাধে পিটিয়ে হত্যা

বাংলাদেশের সামাজিক অবস্থার অবনতি চরমে। যা এতদিন পর্দার আড়ালে ছিল,  আজ বার্চুয়াল জগতের মাধ্যমে সবার সামনে চলে এসেছে, আমরা বাংলাদেশের প্রত্যান্ত গ্রামের সর্বসাধারনের “আইন নিজ হাতে তুলে নেয়ার” দৃশ্যে অবাক হয়েছি হয়তো। কিন্তু এই অবস্থা থেকে বের হয়ে আসতে তেমন কিছু করছি কী? বর্তমান সমাজের প্রেক্ষাপটে যে কোন অপরাধের জন্য শাস্তির বিধান থাকলেও, সমাজের তৃণমূল পর্যায়ের সর্বসাধারণের অজ্ঞতার কারনে ঘটছে অহরহ অপরাধ, যা সমাজের শৃঙ্খলাকে করছে প্রশ্নবিদ্ধ।

 

বিডিনিউউজ ব্লগের মাধ্যমে আমি বন্ধুদের মতামত জানতে চাই, এই অবস্থা থেকে উত্তরনের জন্য আমাদের কী করণীয়? আমি কথা বলেছি একজন সমাজ বিজ্ঞানীর সাথে, তিনি আমার মত হতাশা প্রকাশ করেন এবং রাজনৈতিক নেত্রীত্বকে দায়ী করতে দ্বিধা করেন নাই, তিনি বলেছেন- সমাজের সর্বসাধারণ ধারনা “একজন চোর”কে পিটালে অন্যায় হবে কেন?এমন ধারনা পোষণ করে যে,  কোন ব্যাক্তি / শিশু অপরাধ করলে আইন নিজের হাতে তুলি নিলে তা অন্যায় নয় বলেই মনে করেন প্রায় ৯৫% মানুষ। এই ভুল চিন্তাটিই আজ সমাজের মানবতা ধংসের মুল কারণ।

 

আমাদের সহজেই বুঝে নেয়া উচিত এই যে, যতবড় অপরাধীইকেই আমরা হাতেনাতে ধরি না কেন, তাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীদের হাতে সোপর্দ করার বাইরে আমাদের অন্য কোন দায়ীত্ব নেই। কোন মানুষের শরীরে আঘাত করাটাই মানবতা বিরোধী অপরাধ। আসুন সমাজটাকে ঝঞ্জালমুক্ত করি, মানবিক ও মানুষের সমাজ গঠন করি। আবেগবশত, বা হুজুগে পড়ে কোন মানুষের গায়ে হাত না তুলি।

 

জয়হ হউক মানবতার, জয় হউক মানুষের।

http://www.fb.com/skmizan