ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

একটা ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা দিয়ে শুরু করি। তারিখ ০৭/০৯/২০১২, শুক্রবার। সময় : বিকাল ৩-৩০ মিঃ । স্থানঃ কমলাপুর রেল ষ্টেশন। নারায়ণগঞ্জ গামী ট্রেনে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ঘামছি । ট্রেন ছাড়বে কয়েক মিনিটের মধ্যে। যারা কখনো ঢাকা- নাঃগঞ্জ ট্রেনে চড়েছেন তারা জানেন ভিড়টা কেমন হয়! এমন সময়ে শুনি ষ্টেশনে হুড়োহুড়ি । ব্যাপার কি । রেল ও যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাহেব আসছেন । কেন ? তিনি এই ট্রেনে নাঃগঞ্জ যাবেন । সরজমিনে সব প্রত্যক্ষ করবেন । একটা ডাব্বা পুরো খালি করা হল । প্রতি ডাব্বাতে ভিড় ভয়াবহ আকার নিল। সে যাক, মন্ত্রী বলে কথা! বিমানের হর্তা-কর্তাদের মত গোটা ট্রেন তো আর খালি করেন নাই। শুনেছি তারা নাকি কোন প্রয়োজন পড়লে খালি বিমানখানাই উড়িয়ে নিয়ে যান।

মন্ত্রী তার জন্য ঠিক করা ডাব্বাতে উঠার আগ মুহূর্তে বাকি ডাব্বা গুলোর অবস্থা দেখতে শুরু করলেন । প্রতি ডাব্বার কোন জানালার সামনে গিয়ে দাঁড়ান। প্রশ্ন করেন কি কি অসুবিধা , ( “আহাঃ রে আমার দিন কানা ! কারেন্ট-ফ্যান নাই, সুঁই ঢুকানোর জায়গা নাই। তয় আবার জানতে চায় কিমুন আছি !” — এটা একজন যাত্রীর মন্তব্য। ) কি কি সুবিধা চান । যাত্রীরা সমস্বরে অনেক কিছুই বলল। সব শুনে উনি বললেন, সব কিছু ঠিক করা হবে। তবে গত ২০ বছরে ট্রেনের ভাড়া বাড়ে নি। এটা একটু বাড়ানো দরকার । বোকা কিসিমের কিছু যাত্রী ( যারা বুঝে না ‘ রাজনীতিবিদ কি জিনিস’ তারা ) চিল্লাইয়া বলল, ভাড়া বাড়ান , কিন্তু সুবিধা দিন । চালাক মন্ত্রী মহোদয় তখন বলে ফেললেন, আমি প্রধানমন্ত্রীকে বলব। উনি চলে গেলেন। অনেকটা এলেন, দেখলেন, জয় করলেনের মত।

এবার অনেকের বোধদয় হল। বলতে লাগল , ভাড়া ঠিকই বাড়বে এবং বলা হবে যে এতে জনগণের সায় আছে, যদিও সুযোগ-সুবিধা মিলবে না। প্রিয় পাঠক! এর পরে আর কিছু কি বলার দরকার আছে ? কি ঘটেছে সবই আপনাদের জানা আছে । ভাড়া বাড়ানোর আগে ফলাও করা হয়েছিল যে জনগণের এতে সম্মতি আছে। অতএব এই কাজটি জনস্বার্থে না করে যেন উপায় নেই । হায়রে জনস্বার্থ ! সরকার ( অবশ্যই যখন যে ক্ষমতায় থাকে ) সব কাজই করে থাকে জনস্বার্থে আর জনগণের সম্মতিতে !! সেটা তেল- গ্যাস- পানি- বিদ্যুৎ- কর ইত্যাদির দাম বাড়ানো হোক, বর্ষাকালে রাস্তা কাটা হোক, মেয়ের বিয়ের জন্য কারো চাকুরীর মেয়াদ বাড়ানো হোক, সাগর-রুনি হত্যার ঘটনা নিয়ে চোর -পুলিশ খেলা হোক কিম্বা কাউকে পুলিশ দিয়ে পিটিয়ে কাউকে তক্তা বানানো হোক ইত্যাদি সকল কিছুই । তবে সে স্বার্থটা যে কি এদেশের সোজা-সরল জনগণ আজো বুঝল না । আজ ৪০ বছর ধরে সবাই তাই দেখছে, হয়তঃ আগামী ৪০০ বছরও তাই দেখবে । ।