ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

জাতি ও ধর্ম করে করে ভারতীয় উপমহাদেশ ইতোমধ্যে ৩ /৪ ভাগ হয়েছে। হিন্দু-মুসলমান করে করে ভারত-পাকিস্তান দুই ভাগ হলো, কিন্তু লাভ হলো কাদের? আজ মুসলিমদেরকে জঙ্গী, হিন্দুদেরকে মালাউন এই বলে গালাগালিও দেয়া হয় দেদারছে, লাভ কাদের হচ্ছে? এই ১ মাসের মধ্যে ব্রাহ্মনবাড়িয়ার নাসিরনগরে হিন্দুদের উপর একটি সাম্প্রদায়িক হামলা এবং গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সাওতালদের উপর বাঙ্গালিদের হামলায় কয়েকজন নিহতসহ বেশ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে সাধারণ মানুষের। জাতি-ধর্মের বিভাজন থেকে বেড়িয়ে এসে কেউ কি একটু দেখেছে কারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে? যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারাও তো বাংলাদেশের নাগরিক, যাদের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারাও বাংলাদেশের নাগরিক। ১৯৭১এর মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের চেতনা তো ধর্ম ও জাতিগত সমস্যা তৈরি করা না। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের পক্ষের প্রতিটি মনুষের আজ সময় এসেছে ধর্ম ও জাতিগত সংঘাত রুখে দেয়ার। অসাম্প্রদায়িক ও ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র গড়ে তোলার জন্য দলমত নির্বিশেষে সবাইকে এগিয়ে আসার সময় এসেছে। আর কতকাল এদেশে ধর্ম ও জাতিগত সংঘাত হবে? ভোটের রাজনীতির জন্য আর কতদিন মানুষে মানুষে পরিচয় ভুলে হিন্দু-মুসলিমের দ্বন্দ্ব চলবে? এই প্রশ্ন আমাদের সবার। রাষ্ট্রীয় সম্প্রতি তৈরি করতে না পারলে সবার আগে যে মানব ধর্ম সেই মানব ধর্ম বিপন্ন রূপ নেবে।

লেখক : গণমাধ্যমকর্মী।