ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 

গত কিছুদিন ধরেই ভাবছিলাম লিখব। কয়েকদিন আগে সকাল বেলা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে বসেছিলাম। চায়ের কাপে চুমুক দিচ্ছিলাম আর কথা বলছিলাম প্রায় ৩০ বছর বয়সী একজন শ্রমজীবী মানুষের সাথে। মানুষটি পেশায় রিক্সাওয়ালা। নাম আব্দুর রশিদ, বাড়ী চাপাইনবাবগঞ্জে। শ্রমজীবী মানুষটির সাথে কথা বলতে বলতে একটা অভিজ্ঞতা অর্জন করলাম। রশিদ ভাই এর বাংলা ভাষা উচ্চারণ অনেক শুদ্ধ। জিজ্ঞেস করলাম, ‘কতটুকু পড়াশোনা করতে পেরেছেন?’ উত্তরে তিনি বললেন,‘পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়তে পেরেছি। বাবার মৃত্যুতে সব উলট-পালট হয়ে গিয়েছিল। পড়াশোনা করতে পারিনি আর। এরপর থেকে রিক্সা চালিয়েই জীবন যাচ্ছে। বাবা মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন কিন্তু স্বীকৃতি পাননি। গ্রামের জয় বাংলার লোকেরা দেখলেও আমাদেরকে চিনেও না চেনার ভান করে থাকে।’ জিজ্ঞেস করলাম,‘জয় বাংলার লোক বলতে কি বোঝাচ্ছেন ?’ তিনি বললেন,‘ জয় বাংলার লোক বলতে আওয়ামীলীগের লোকদের বোঝাচ্ছি।’ আমি বললাম,‘জয় বাংলার লোক তো আপানিও। ‘জয় বাংলা’ তো আওয়ামীলীগের একার স্লোগান না। ‘জয় বাংলা’ এ দেশের স্বাধীনতার পক্ষের প্রতিটি মানুষের স্লোগান, কোন দলের একার স্লোগান নয়।’ রশিদ ভাই এর মতো মানুষগুলো হয়তো ‘জয় বাংলা’ বলতে আওয়ামী লীগকেই বুঝেন। কিন্তু সেটাতো হওয়ার কথা ছিল না। ‘জয় বাংলা’ আমার স্লোগান, এদেশের স্বাধীনতার স্লোগান, আপামর জনতার স্লোগান, স্বাধীনতার পক্ষের প্রতিটি দলের স্লোগান।

 

লেখক : গণমাধ্যমকর্মী।