ক্যাটেগরিঃ ব্লগালোচনা

বব্স ২০১২’র মিশ্র ক্যাটেগরি সীমানাবিহীন সাংবাদিক পুরস্কার বিভাগে এবছর ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড’ জিতেছে একটি বাংলা ব্লগ৷ বিশ্বের আরো দশটি ভাষার একই বিষয়ের ব্লগের সঙ্গে লড়াইয়ে বিজয়ী আবু সুফিয়ান’এর বাংলা ব্লগ৷ এই বিজয়ে উচ্ছ্বসিত আবু সুফিয়ান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘ এটা নিঃসন্দেহে একটি বড় অর্জন৷ একজন ব্লগার হিসেবে, একজন সাংবাদিক হিসেবে এবং বাংলাদেশের একজন মানুষ হিসেবে আমি মনে করি, এটা অনেক বড় পাওয়া৷ আমি মনে করি এটি সমস্ত বাঙালি ব্লগার এবং বাংলাদেশের সাংবাদিকদের অর্জন৷”

সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার এবং মেহেরুন রুনির হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে অত্যন্ত সক্রিয় ব্লগার আবু সুফিয়ান৷ গত ফেব্রুয়ারিতে এই বর্বোরিচত হত্যাকাণ্ডের পর এখনও কেউ গ্রেপ্তার হয়নি৷ সুফিয়ান তাঁর লেখনির মাধ্যমে এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে জনসচেতনতা সৃষ্টি করেছেন৷ এই বিষয়ে রাজপথে ব্লগারদের বিভিন্ন কর্মসূচিতেও সরব ভূমিকা পালন করেন তিনি৷ এছাড়া বাংলাদেশে গুম, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড নিয়েও দীর্ঘদিন ধরে লিখছেন সুফিয়ান৷ এই বিষয়ে তিনি বলেন, ‘‘সাগর-রুনির হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে আমরা ভার্চুয়াল জগত থেকে রাজপথে নেমে এসেছি এবং ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন কর্মসূচি দিয়ে আসছি৷ কিন্তু আমরা ব্লগাররা আশঙ্কা করছি ব়্যাবও হয়ত পুলিশের মতোই এই হত্যাকাণ্ডের বিচারের ক্ষেত্রে খুব বেশি ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে না বা করতে পারবে না৷ সেক্ষেত্রে ব্লগারদের পক্ষ থেকে আমি বলতে চাই, এই তদন্ত (সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ড)কাজ — এটা যদি বিদেশি যারা বিশেষজ্ঞ রয়েছেন তারা যদি এসে তদন্ত কাজে সহযোগিতা করেন বা নিরপেক্ষভাবে তারাও যদি তদন্ত করেন — তাহলে তদন্ত কাজ অনেক বেশি গতিপ্রাপ্ত হবে এবং সত্য বেরিয়ে আসবে কারা এই হত্যাকাণ্ডের পেছনে রয়েছে৷”

বিজয়ী ব্লগার আবু সুফিয়ান

জুরি’র মন্তব্য

বাংলা ভাষার পক্ষে জুরিমণ্ডলীর সদস্য ছিলেন প্রখ্যাত আলোকচিত্রশিল্পী এবং ব্লগার ড. শহীদুল আলম

সেরা ব্লগ অনুসন্ধান প্রতিযোগিতার এবারের আসরে বাংলা ভাষার পক্ষে জুরিমণ্ডলীর সদস্য ছিলেন প্রখ্যাত আলোকচিত্রশিল্পী এবং ব্লগার ড. শহীদুল আলম৷ আবু সুফিয়ান’র এর বাংলা ব্লগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘সবচেয়ে বড় ব্যাপার হচ্ছে এই সাংবাদিককে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে৷ তাঁর কাজকে মূল্যায়ন করা হয়েছে এবং আমি আশা করি এটা হবার কারণে একটা প্রভাব পড়বে৷ যে প্রশ্নগুলো সে তুলছিল, উত্থাপন করছিল, যে প্রশ্নগুলো তাঁর একার নয়, আমাদের অনেকেরই প্রশ্ন, সেগুলোর জবাবদিহিতা কোন একভাবে সরকারের দিতে হবে৷ এবং ব্লগিং বিষয়টি তুলনামুলকভাবে আমাদের কাছে নতুন, প্রযুক্তিগতভাবে আমরা অন্যদের তুলনায় হয়ত ততটা এগিয়ে নেই কিন্তু বাংলাদেশি ব্লগাররা যে এখন এই ধরনের ভূমিকা রাখছে সেটা লোকে বুঝবে অন্তত৷”

সাগর-রুনির হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে আবু সুফিয়ান’এর ব্লগ প্রসঙ্গে শহীদুল আলম বলেন, ‘‘আমার মনে হয় পুরস্কারটা পাওয়ার পেছনে এটা একটা কারণ ছিল৷ ব্লগাররা যে রাস্তায় নেমেছে তাদের আন্দোলন নিয়ে, তারা যে শুধু বাড়ি বসে ইন্টারনেটে কাজ করছে না, বরং রাজপথ দখল করছে এবং এই দাবি যে জনগণের দাবি সেটা নিশ্চয়ই বিচারকরা ভেবেছে৷”

শহীদুল আলম মনে করেন, আন্তর্জাতিক এই সম্মাননার ফলে আবু সুফিয়ান যে বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করছেন সেগুলোও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আলোচিত হবে৷ এবং এরফলে যে প্রশ্নগুলো উত্থাপিত হবে, কোন নাকোনভাবে সরকারকে সেসবের মুখোমুখি হতে হবে৷
ব্লগার আবু সুফিয়ান

(সরাসরি লিংক)