ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

 

ঘোষনাঃ

বৈশাখ সংখ্যার জন্যে লেখা জমা দিন। অনেক পাঠক আমাদের বলেছেন, শুধু কবিতা কেন? অন্য কিছু নয় কেন? তাই পাঠকের কথা চিন্তা করে সামনে সংখ্যা থেকে লেখার বিষয় বাড়িয়ে দেওয়া হল।
১। গল্প
২। কবিতা
৩। সাহিত্য/বিজ্ঞান/রাজনীতি/সমাজ/অর্থনীতি/কৃষি/স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রবন্ধ
৪। অনুবাদ সাহিত্য
৫। মুক্তগদ্য
৬। ধারাবাহিক উপন্যাস (প্রথমেই অন্তত অর্ধেক লেখা পাঠাতে হবে)
৭। বই আলোচনা
৮। চিত্রকলা
৯। ভ্রমন কথা
১০। নগর জীবন/ প্রবাস জীবন
১১। ব্যক্তিত্ব/নারী বিষয়ক প্রবন্ধ
১২। ফ্যাশন/বিনোদন/রান্না বিষয়ক প্রবন্ধ
১৩। খেলাধুলা বিষয়ক প্রবন্ধ

একটি সংখ্যায় সব ধরনের লেখা নাও থাকতে পারে। আবার এই বিষয়ের বাইরে কোন লেখা পেলে বিবেচনা করে দেখা হবে। লেখা পাঠান এই ইমেইলেঃ rongon1971@gmail.com
———————————————

রঙ্গনের সম্পাদকীয় থেকে
———————-

ইতিহাস কথা বলে
তবু ইতিহাস ফেলে
তৈরি নতুনের দল।
নতুনের কিছু হবে
ধ্যান জ্ঞান উপমার
কবিতার কর্ম বল।

* কবিতা কি? কি হবে কবিতা লিখে? কবিতা কি খেতে দিবে, পড়তে দিবে? তাহলে কেন কবিতা লেখা? অযথা কালক্ষেপন? তার চেয়ে বাস্তবে ফিরে…সংসারে মন দে। আয় উপার্জনে মনোযোগী হ।
* ও কে? দূর দূর। কি সব লেখে? অ ক না শিখেই এসে পড়ে ঘরের চালে। হিঁচড়ে নামা তারে।
* দেখ দেখ, বুড়ো ভাম। এখনো কি সব ছাই পাশ লিখে? ওহে বুড়োভাম, এবার সরে যা। তোর আয়ু শেষ। বাসায় ফিরে কাটগে অবৈধ কেশ।
* ধুর শালা। আর কবিতা লিখব না। কেউ পড়ে না আমার কবিতা। কাব্যগ্রন্থ বের করে ফতুর হয়ে গেলাম।
* মাত্র এ কটা পিস বিক্রি হল। মান সম্মান যে যায় যায়। শালার পাঠক চাই।
* শালার প্রকাশক করে শুধু ডাকাডাকি। বই বের হয়ে গিয়েছে, এখন ডুব দি।
* ব্যাটা জোচ্চর, ডাকাত। বই বের করতে টাকা নিয়েছে একগাদা। ফাঁসিয়ে দিয়েছে আমারে।
* কি লাভ হল এই লেখালেখিটা করে? জীবনে কি পেলাম? এই নিঃসঙ্গ জীবন ছাড়া কি পেলাম?

এমনই গুঞ্জনে মুখরিত সকলে। যেন কোন কিছুকে পাওয়ায় একটা লক্ষ্য। শিশু ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর বাবা মা আহ্লাদে বলে উঠে, বাবা আমার ডাক্তার, নয়ত ইঞ্জিনিয়ার হবে। সেরকমই একটা অদৃশ্য লক্ষ্য। এতকিছুর পরেও বেঁচে রয়েছে কবিতা। কোন কিছু পাওয়ার জন্যে কবি কবিতা লিখে না। কবিতা শুধু একজনকে বাঁচিয়ে থাকতে শেখায়। একজন কবিই পারে এভাবে বলতে,

আজন্ম মানুষ আমাকে পোড়াতে পোড়াতে কবি করে তুলেছে,/মানুষের কাছে এও তো আমার এক ধরনের ঋণ।/এমনই কপাল আমার/অপরিশোধ্য এই ঋণ ক্রমাগত বেড়েই চলেছে।
-হেলাল হাফিজ

কবি কবিতা লিখুক, যেমন ইচ্ছা তাই লিখুক, মনের আনন্দে লিখুক।

——————————————