ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

নব গঠিত নাগরিক আন্দোলন দেশে গনতণ্ত্র রক্ষায় ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় যথাযথ ভূমিকা রাখবে এ আশাবাদ ব্যক্ত করছি। সে সঙ্গে সঙ্গে সকলের প্রতি কিছু প্রশ্ন রাখতে চাই, এ ফোরামের সাথে জড়িতদেরও জবাবদিহিতার প্রয়োজন রয়েছে নিশ্চয়ই …..

১। প্রবীণ আইনজিবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের প্রতি যথাযথ শ্রদ্ধা রেখে বলছি, আপনি আপনার মক্কেলদের থেকে যে সার্ভিস চার্জ নেন তার পুরো টাকার মেমো দেন ? আপনার আয় পুরোপুরি আয়কর রিটার্ণে প্রদর্শন করেন ? আমার অভিজ্ঞতায় আমি কোন আইনজীবিকে মেমো দিতে দেখিনি। পাঠক সাধারন এক্ষেত্রে আপনাদের অভিজ্ঞতা কি ?

২। রাজনীতিক মাহী বি চৌধুরীর স্ত্রী আশফাক হক লোপা, উনি কি পরিচয়ে এ সকল গণ্যমাণ্য ব্যক্তিত্বদের আহবায়ক কমিটিতে জায়গা পেলেন ? শুধুই কি মাহী বি চৌধুরীর স্ত্রী বলে ? পত্রিকাগুলো উনার পরিচয়টা এভাবেই লিখেছে। মাহী এবং লোফা একটি প্রতিযোগিতা মূলক টিভি অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেছিলেন। সেখানে লোফা যে পোষাকে উপস্থাপন করেছিলেন তা কি বাঙ্গালী, বাংলাদেশী, মুসলমান তার এ সকল পরিচয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ ছিল ? উনি সে পোষাক পরে বাংলার নারীদের কি ম্যাসেজ দিতে চেয়েছেন ? উনি একজন ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য। তিনি এখন সামাজিক ফোরামে আসছেন। ভবিষ্যতে রাজনীতিতেও আসবেন আশা করি। তাই তাকে অব্যশই এ দেশীয় সমাজ, সংস্কৃতির কথা মাথায় রাখতে হবে।

ফোরামের অন্যদের প্রতিও এ ধরনের প্রশ্ন রাখা যায়। আমার এ লেখার উদ্দেশ্য কাউকে হেয় বা কষ্ট দেয়ার জন্য নয়। প্রবীণ আইনজিবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আমাদের সম্পদ। কোর্ট বিভিন্ন মামলায় তাঁকে এ্যমিকাস কিউরি হিসাবে মতামত নেয়। সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রফেসর বদরুদ্দোজা আমার প্রিয় একজন ব্যক্তিত্ব, তাঁর পরিবারের সদস্যদের প্রতিও আমি শ্রদ্ধারোধ পোষন করি। কিন্ত আমরা বেশির ভাগ বাঙ্গালীই কৈবত। মুখে এক অন্তরে আরেক। এটাই কি বাঙ্গালী চরিত ?