ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

ফ্রান্সের চামোনিক্স শহরে ১৯২৪ সালে প্রথম শুরু হওয়া শীতকালীন অলিম্পিকের এবারের (২০১৮) আসরে সর্বোচ্চ পদক জয়ী দেশ নরওয়ে। প্রায় ৫.২ মিলিয়ন (৫২ লক্ষ) লোকের এই দেশে ৩৯টি অলিম্পিক পদক গেছে, যার মধ্যে ১৪টিই হলো স্বর্ণপদক! বটেই তো এক হুলস্থুল কাণ্ড! তাইতো আমেরিকান মিডিয়া এখন বিস্তারিত বিশ্লেষণ করছে নরওয়ের সমান ‘পার কেপিটা মেডেল’ পেতে হলে আমেরিকার মোট কত মেডেল পেতে হবে? একটা হিসেবও মিললো। সংখ্যাটা নেহাত কম নয়, প্রায় ২৭০০ এর কাছাকাছি!

 

.

নরওয়েজিয়ানরা স্কিইংয়ে খুবই ভালো। তারা স্কেটিং মধ্যে বিজয়ী হয়, জাম্পিংও বাদ যায় না। প্রায় সবক্ষেত্রেই স্বর্ণপদক পেয়েছে। পেয়েছে আরো কিছু অপ্রত্যাশিত ইভেন্টেও। এই অলম্পিকের সর্বপ্রথম ইভেন্টে পদক জিতেছিল নরওয়ে। আজ অলিম্পিকের শেষ ইভেন্টেও ৩৭ বছর বয়সী মেরিট বিওরগেন (নরওয়েজিয়ান মহিলা) সোনা জিতে এই বছরের শীতকালীন অলিম্পিক গেমসের সমাপ্তি ঘোষণা করলেন!

তো, এত পদকের রহস্য কি?

১. টাইম ম্যগাজিনকে নরওয়ের অলম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান জানিয়েছেন, তারা কিভাবে তরুণদের ট্রেনিং দিয়ে থাকে। ওদের তরুণ ক্রীড়া দলগুলিতে ১৩ বছরের আগ পর্যন্ত ছেলে-মেয়েরা কোনো খেলায় স্কোর করতে পারবে না। (এইটা তাদের শিক্ষাক্ষেত্রেও প্রযোজ্য)। ওদের যেহেতু স্থান নির্ধারণ করা শিখানো হয় না, সেহেতু ওরা সবাই মানসিকভাবে সন্তুষ্ট থাকে। আর সবাই নিজেদের শতভাগ দিয়ে খেলার চেষ্টা করে। এতে করে সবার শেখাটাও বেশি হয়।

২. ছোট থেকেই ওরা বিভিন্ন স্পোর্টস ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত থাকে। এইসব ক্লাবগুলোতে বাচ্চারা নিজেরা খেলতে খেলতে অনেক কিছুই শিখে, আবার খেলা থেকেও অনেক কিছু শিখে। এখানে কাউকে জোরপূর্বক কিছু শেখানোর চেষ্টাও করে না। সাথে সাথে তাদের সামাজিক দক্ষতার উপর নজর রাখে।

৩. নরওয়েজিয়ান অলিম্পিক ফেডারেশন ক্রীড়াবিদদের কোনো প্রাইজমানি বা বোনাস দেয় না। কারণ তারা মনে করে প্রাইজমানি বা বোনাস ক্রীড়াবিদদের মনে অন্য রকম প্রভাব ফেলতে পারে।

৪. নরওয়ে খেলোয়াড়দের মনস্তাত্ত্বিক বিষয়গুলোকে অনেক বেশি গুরুত্ব দেয়। ওরা মনে করে, যেকোনো ক্রীড়াবিদের কাছে তার মানসিকতা তার অভিজ্ঞতার ক্ষেত্রে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ওরা শিখায় কিভাবে উদ্বিগ্ন না থেকে খেলতে হয়।

৫. ক্লাবো (Johannes Høsflot Klæbo ) নামের ২১ বছর বয়সী এক বিস্ময়কর বালক আছে। সে অলম্পিকে ৩টা গোল্ড মেডেল জিতে ইতিমধ্যে বিশ্বজুড়ে আলোচনার মধ্যমণি হয়ে গিয়েছে। আমি নিজেও আগ্রাহী হয়ে দেখতে গিয়ে জানলাম, এই ছেলের টেকনিক নিয়ে ইউনিভার্সিটি অফ ট্রমসো তে রিসার্চ শুরু করেছে। এতে বুঝা যায় তারা কতখানি গুরুত্ব দিয়েছে শীতকালীন এসব খেলাকে!

উপরোক্ত কারণগুলোই নরওয়ের শীতকালীন অলিম্পিকে এত পদক জয়ের আসল রহস্য।