ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

AchenaYatri

‘অচেনা যাত্রী-১৩’ পড়া শেষ করলাম। এবং অদ্ভূত এক শূণ্যতায়, ফাঁকা কোন মাঠের ভিতরে হেঁটে যাবার অনুভূতি বোধ করলাম। আসলে প্রথম থেকেই অচেনার সঙ্গে। এর নির্মাণকর্মের সঙ্গে তুমুল জড়িয়ে আছি তো। তাই আমার আবেগটা এখানে একটু বেশিই ক্রিয়াশীল। যাই হোক ভালো হয়েছে অচেনা যাত্রী-১৩। আমি আলাদা করে নাম বলবো না। কিন্তু রুপাই পান্তির লেখা, অনুবাদগুলো, বিভাস দার ও শিমুলের লেখা কি ভয়াবহ নাড়িয়ে দিয়েছে! নাজনীন আপা ভালো লিখছেন। অমিতের ‘বসন্তের ঘরবাড়ি’র জন্মপরব থেকেই আমি উদ্বেল সাক্ষী। সব গল্পই কয়েকবার করে পড়া। তবে ৮ টি নুতন গল্প যুক্ত হয়েছে আরো। ওগুলো পড়লাম। আমিতের মেধা ও বোধ আমাকে বিস্মিত করে বারংবার। অমিত-কে হুড খোলা অভিবাদন। ‘অচেনা যাত্রী’ আরো অনেক কাজ করবে। সঙ্গে থাকছি।