ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

গতকাল অফিস শেষ করে বাসায় যেতেই বাবুল ভাই এর ফোন, কোন মতে ফ্রেস হয়ে তার বাসায় রওনা। রাতে ডিনার এর দাওয়াত। সানান্দে গৃহীত হল। কারণ আজ কেন জানি রান্না করতে ইচ্ছা করছিল না। অবশ্য বাবুল ভাই আমাকে শুধু শুধু দাওয়াত করেনি, তাকে ট্যাক্স এর কিছু টিপস দিতে হবে। টিপস এর বিনিময়ে রাতের খাওইয়া । যা-ই-হোক কাজ প্রায় শেষ। কারেন্ট অফ (লোড শেডিং)। গরমে ব্যালকনি তে চেয়ার পেতে দিল ভাবি।

চলছে অন্ধকারে আমাদের আলোচনা। এর মধ্যে বাবুল ভাই এর মোবাইল এ একটা কল, কোন সৌজন্যতা না দেখিয়ে স্রেফ উত্তর, “হা ভাল আছি”, ৫ সেকেন্ড পর আবার বলল “কাজে আছি”, “পরে ফোন দও”। “না- আসব না” বলল বাবুল ভাই। চাদের আলোতে মুখটা পুরো না দেখা গেলেও বুঝা গেল তার মুখে বিরক্তির ছাপ। আবার ৫-১০ সেকেন্ড পর বলল “ বললাম না আসব না”। বুঝতে বাকি থাকল না যে তা মা ফোন করেছে ঈদে বাড়ি যাবে কি না এটা জানা্র জন্য। হয়ত মা বসে আছে অনেক দিন ধরে- ঈদে ছেলে টা বাড়ি ফিরবে এই আশায় … বিষয়টা উপলব্বধি করে খুবই কষ্ট লাগল আমার, আমার জন্যও তো বসে আছে আমার মা, আমার বাবা, আমার ভাই।

আমি তো বসে আছি মা ছুটির জন্য। কাল ছুটি পাবো মা। পূজা শুরু হয়ে গেছে গত কাল থেকে, এখনো বের হতে পারি নি অফিস থেকে। কিন্তু মন টা বের হয়ে গেছে অনেক আগে।
বাবুল ভাই এর ঐ বাপার টা আমাকে বাবুল ভাই থেকে দূরে ঠেলে দিচ্ছে।