ক্যাটেগরিঃ ফটো

 

একটা সময় আমাদের বাড়ীর যা যমুনা নদীতে ভেঙে গেছে; পিছন পাড়ায় পাটনি সম্প্রদায়ের মানুষ থাকতো। ওদের পেশাই ছিল বাঁশ দিয়ে নানা রকমের তৈজসপত্র যেমন বাজারের খালই, ঝাঁকা, মাছ ধরার পলো-ধিয়ার সহ গৃহস্থালী ও কৃষিকাজে ব্যবহার্য নানা জিনিষ বানানো। ছোটবেলায় আমি তাদের পাড়ায় যেয়ে সেগুলো বানানো দেখতাম। বন্যার সময় হলে দাদা’রা মিলে মাছ ধরার ধিয়ার-বানা বানিয়ে নিয়ে আসতাম।

এশিয়ান হাইওয়ের নব নির্মিত হাইওয়ে দিয়ে গৌহাটি থেকে নওগাঁও যাওয়ার রাস্তায় সারি সারি বাঁশ শিল্পজাত দোকান দেখে গাড়ি থামিয়ে একটাতে নেমে পড়লাম।

আমাদের দেশ থেকে এই শিল্প হারিয়ে যেতে বসলেও আসামে তা বীরদর্পেই টিকে আছে। দোকনাটিতে হরেক রকমের গৃহস্থালী ও কৃষিকাজের তৈজসপত্র থরে থরে সাজানো আছে। দেখে লোভ হলো; দুই-একটা কিনতেও ইচ্ছা হলো কিন্তু আনবো কিভাবে সেটা ভেবে তা থেকে বিরত থাকলাম।

তবে ছবি তুলতে ভুললাম না; পাশাপাশি ডাবের ডিসপ্লেটা এখানে ফ্রি দেওয়া হলো। পোষ্ট পড়তে পড়তে যদি কারো তৃষ্ণা লাগে; সেটা ভেবে !!!

ঘটনা – জানুয়ারি ২০১৩ সালের। আপডেট: ১৭/০১/২০১৫ রাতঃ ৯.৩৮

slide