ক্যাটেগরিঃ স্যাটায়ার

একটা গল্প বলি …

বাঁশের ডালায় বিছিয়ে দেওয়া তুঁত পাতা খেয়ে খেয়ে রেশম পোকাটি বেশ মোটা তাজা হয়ে উঠেছে। অল্প কয়দিন পরই সে তার লালা থেকে সূতা বানিয়ে নিজেকে গুঁটিয়ে ফেলবে প্রজাপতি হবে বলে।

এক সকালে শুঁয়োটি নিজের চারপাশটা লালা দিয়ে ঘিরে দিতে দিতে আগামীর স্বপ্ন দেখছিলো। এমন সময় ঘরের কোনে লুকিয়ে থাকা টিকটিকিটা তাকে দেখে টক টক করে বলে উঠলো, কিহে শুঁয়ো; তবে কি তোমার দিন ফুঁড়ালো? হেসে শুঁয়োটি বলল, না হে বড়! এবার আমি প্রজাপতি হবো, ফুলে ফুলে উড়ে বেড়াবো, মধু খাবো আর নিজ বাচ্চা তোলাবো। আহা! ডিমে ডিমে তুঁত পাতাগুলো ভরে ফেলবো আমার বংশধর দিয়ে। বলেই শুঁয়োটি নিজ কাজে মন দিলো; শরীরের চারপাশটা শক্ত করে ঢাকতে থাকলো। ঢাকতে ঢাকতে একসময় শুঁয়োটা একটা বড় সাদা গুঁটিতে পরিণত হলো।

এতদিন ধরে রেশম চাষিটি এটার অপেক্ষায়ই ছিল। এবার চাষিটি গুঁটিটাকে ডালা থেকে তুলে নিয়ে গরম জলে সিদ্ধ করে তা থেকে ঝকঝকে চকচকে রেশম সূতা বের করলো। তারপর সেই সূতা রাঙিয়ে রঙ-বেরঙের কাপড় তৈরি করে দোকানে ঝুলিয়ে দিলো।

আর তাই দেখে ক্রেতারা আহা! উহা! করে উঠলো!

এবার আমার গল্প ফুঁড়ালো …

০৮/০২/২০১৫ রাতঃ ১১.২৯