ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

প্রথমেই আমি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আজকের মহান জয়ের জন্য আমাদের ক্রিকেট টিমকে মাথা নুয়ে স্যালুট জানাই। স্যালুট জানাই এই জয়ে যারা ভূমিকা রেখে নিজেদের মুখ উজ্জ্বল করার পাশাপাশি দেশবাসীকে একটা নির্ভেজাল আনন্দের উপলক্ষ এনে দিয়েছে, তাদের। স্যালুট জানাই- দুর্দান্ত খেলে আজকের জয়ে প্রধান ভূমিকা রাখা মাহমুদুল্লাহ, মুশফিকুর রহিম, রুবেল ও সাম্য সরকারকে। আরও স্যালুট জানাই এই দলগঠন ও পরিচালনের সাথে জড়িত সকল কলাকুশলী ও কোচিং স্টাফদের। স্যালুট জানাই- তাদের; যারা অনেক সমালোচনা সহ্য করেও রুবেলকে এই টিমে খেলার সুযোগ দিয়েছিল। স্যালুট জানাই- আমাদের মাননীয় আদালতকে, রুবেলকে সময়মত জামিন দেওয়ার জন্য। স্যালুট জানাই- হ্যাপিকেও যে লালদালানে ঢুকিয়ে রুবেলকে তাতিয়ে দিয়েছিল। স্যালুট জানাই- মাশরাফিকে যিনি আজকের জয়টাকে মুক্তিযোদ্ধাদের উৎসর্গ করেছেন।

এতক্ষণ আমি হকারী করার প্র্যাকটিস করলাম! দেখলাম কেমন পাড়ি! মনে হচ্ছে খুব একটা যুৎ হয় নাই! যাউকগা! যে কথা বলার জন্য এই ভূমিকার অবতারণা করলাম তার ম্যাজেজাটা বলি-

যে রুবেল, হ্যাপির কেসে খলনায়ক ছিল। দলবেঁধে আমরা তাকে চৌদ্দ শিকের ভাত খাওয়াতে চাইলাম। সেই রুবেল, যেই একটা ম্যাচে ভাল খেলে দলের বড় জয়ে ভূমিকা রেখেছে; ওমনিই আমরা বলা শুরু করলাম, “রুবেল, হ্যাপি আস”, “হ্যাপি মি”!

এখন যদি রুবেল সত্যি সত্যিই হ্যাপিকে যেভাবে হ্যাপি বানাইছিল, সেইভাবে যারা তাকে হ্যাপি বানানোর আহ্বান জানাচ্ছে তাদেরকে হ্যাপি বানানোর আবদার করে? দাবী তোলে, “আসো, তোমাকে হ্যাপি বানানোর আমার প্রাপ্য সুযোগটা দাও”! তাহলে কি হবে?

বাঙ্গালী যে আসলেই এক নীতিতে থাকতে পারে না, তা আবারো প্রমাণ হলো। শুনছি রুবেলের কীর্তিতে হ্যাপিও নাকি হ্যাপি! অবশ্য প্রেম পিরিতিতে এটা হয়েই থাকে। কিন্তু তাই বলে আমরা সবাই একযোগে রুবেল দ্বারা হ্যাপি হতে চাইবো? তার সাত খুন মাপ করে দেব?

এরেই বলে বাঙ্গালী, একদিনেই উল্টে যায়! পুড়াই রাজাকারী ভাবধারা!

ভাল খেললেও অপরাধীর অপরাধ ধুয়ে যায় না।

— লেটস এনজয় টুডে’স ভিক্টরি!

০৯/০৩/২০১৫ রাতঃ ১০.৪৬