ক্যাটেগরিঃ স্বাস্থ্য

 

মানুষের টেন্ডেসি হল নিষিদ্ধ বস্তুর উপর আকর্ষিত হওয়া। আজ পর্যন্ত পৃথিবীর কোন দেশ, কোন মতবাদ, কোন আইন এই আকর্ষণ থেকে তাদেরকে শতভাগ রুখতে পারে নাই। একটাতে সে বাঁধা পেলে অন্যটাতে ঝুঁকবে। কিছু না পেলে সবশেষে টিকটিকির লেজ খাবে, নইলে খাবে জামবাগ।

আমি মনে করি, মাদক থেকে মানুষকে মুক্ত করতে চাইলে আমাদের আউট অব বাউন্ডারি চিন্তা করতে হবে। নইলে ফেন্সিডিলের জায়গায় স্থান নিবে ইয়াবা; ইয়াবার জায়গায় স্থান নিবে জুতার চামড়ায় লাগানো সলিউশন। কিছু না পেলে সুপারির রস খাবে যা এনার্জি ড্রিঙ্কস নামে পরিচিত। এছাড়াও আছে আমাদের প্রচলিত পান-সুপারি আর চুনের নেশা। আজকের খবরে জানলাম, সুপারিও একটা ভয়ংকর মাদক যা মানব দেহে ক্যান্সার তৈরী করে থাকে। এখানে জর্দা আর সাদা তামাক পাতার কথা আর বাদ যাবে কেন? এগুলোও মানুষ খায় নেশা নেশা ভাব আনার জন্য।
Pan
আমি একসময় সিগারেট খেতাম প্যাকেট দরে। ২০১০ সালের আগস্টে আমি এক টোকায় ছেড়েছি। আর কোন প্রলোভনই আমাকে ওমুখো করতে পারেনি। তাই বলতে পারি নেশা ছড়াতে চাইলে লাগে স্রেফ ইচ্ছা শক্তি আর বিবেচনা বোধ!

ছবি সুত্রঃ Google

পূর্বের লেখাঃ ধুমটানে, সুখটান!