ক্যাটেগরিঃ নাগরিক মত-অমত

আচ্ছা ধরুন-

মেয়েরা এমন একটা শারীরিক ক্ষমতা পেলেন যার বলে তারা পুরুষের স্পার্ম ছাড়াই গর্ভ ধারণে সমর্থ হলেন; পাশাপাশি তাদের গর্ভের সন্তানের লিঙ্গও নির্ধারণ করার ক্ষমতা পেলেন তারা! তাহলে কি হবে?

প্রশ্নটা কি বেশী ভয়ংকর হয়ে গেল বা খুব বেশী বাল্যখিলতা? আসুন দেখে নেওয়া যাক এই বিষয়ে প্রাণী জগত কি বলে? বা মানব ইতিহাস কি বলে? খুঁজি এর রেফারেন্স?

কয়েকদিন আগে একটা খবরে দেখলাম, এক ধরণের মেয়ে হাঙ্গর পুরুষের স্পার্ম ছাড়াই সন্তান জন্ম দিচ্ছে এমনকি এর সাথে সম্পর্কিত ‘অবিচ্ছেদ্য অনুষঙ্গ’ মানে সমজাতীয় পুরুষ হাঙ্গরের সাথে সেক্সও করেনি তারা! তারমানে হলো এই প্রজাতির হাঙ্গরগুলো এমন একটা ক্ষমতা অর্জন করেছে; যার কারণে তাদের আর পুরুষের দরকার নেই! অর্থাৎ সৃষ্টিকর্তা তাদের সেই ক্ষমতা দিয়েছেন!

একধরণের গিরগিটি আছে যাদের মেয়েরা একে অপরের সাথে শারীরিক কসরতের মাধ্যমে যৌন অনুভূতি পায় যা আসলে প্রকৃত অর্থে সেক্স নয়; তারপরেও তারা উভয়েই গর্ভবতী হয়ে যায়! অর্থাৎ তাদেরও পুরুষ লাগে না! এছাড়াও জানা যায় কমোডোর ড্রাগন ও কিছু কিছু সাপ তাদের সন্তান উৎপাদন করে একই প্রক্রিয়ায়; পুরুষ ছাড়াই! অর্থাৎ সৃষ্টিকর্তা তাদেরও একই ক্ষমতা দিয়েছেন!

প্রাচীন ভারতীয় সাহিত্যে ও মানব ইতিহাসেও এরকম দুই-একটি নজির আছে বলে শুনেছি!

তা হলে ব্যাপারটা কি দাঁড়ালো? আমরা পুঙ্গবেরা কথায় কথায় মেয়েদের গালমন্দ করি, সবকিছুতেই তাদের দোষ খুঁজি! এখন যদি মেয়েরা একজোট হয়ে সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করে সেই সুযোগ পেয়ে যায়; তাহলে আমরা কি থাকবো এই পৃথিবীতে? পুরুষ হিসেবে আর জন্ম নেবো? মানে পুরুষ চ্যাপ্টার ক্লোজড; সৃষ্টিকর্তা’র মন বোঝা কিন্তু মুশকিল?

সো ভাইয়েরা, খুব খেয়াল কইরা!

অফটপিকঃ তাই বলছি কি, আসুন পৃথিবীর সব মেয়েদেরই ভালবাসি! তাদের নিরাপত্তা দিতে চেষ্টা করি; রক্ষা করি তাদের মর্যাদা! আমি-আপনি যেমন আমাদের মা, বোনদের ভালবাসি; অন্যরাও কিন্তু তেমনি তাদের জনদেরও ভালবাসে! এখন আমি যদি নিজের বুঝটা বুঝে; অন্যের ভালবাসার দিকে ক্রমাগত অবৈধ হাত বাড়াতে চাই তাহলে কিন্তু স্রষ্টার মাইর খেতে পারি সদলবলে! তো ভাইয়েরা আসেন, লাইনে আসি; সেখানে সেখানে যাকে তাকে ধর্ষণ করা থামাই; নইলে সৃষ্টিকর্তা আমাদের উপর রাগ করবেন! মেয়েদেরকেও তিনিই সৃষ্টি করেছেন কিন্তু!

আর আমাকে, আপনাকে উনি ভাল করেই চেনেন; জানেন! যা আমরা জানি না!

মাইন্ড ইট >>>

উদ্ভট চিন্তা-২
উদ্ভট চিন্তা-১

০৫/০৬/২০১৫, রাত ১২.৪০