ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

মানবের ক্ষুধা আসলে তিনটা-

১) পেটের ক্ষুধা।
২) মনের ক্ষুধা।
৩) যৌন ক্ষুধা।

এর মধ্যে পেটের ক্ষুধা মুখ্য; আর অন্য দুটো গৌণ।

কারও যদি ‘পেটের ক্ষুধাটা আর ‘ক্ষুধা’ না থাকে বা পেট ভরপুর থাকে; তখন তার কাছে পরের ক্ষুধা দুটো মুখ্য হয়ে যায়। সেক্ষেত্রে পেটের ক্ষুধা হয়ে যায় গৌণ। তখন মানব মনের ভিতরে নানা রকমের ক্ষুধা অনুভব করে থাকে; এই যেমন ব্লগিং! এছাড়াও আছে আরও কত কি; যৌনতাও তাদের মধ্যে একটা।

যদিও ‘যৌন ক্ষুধা’টা মনের ক্ষুধারই একটা বাই প্রোডাক্ট কিন্তু মানব কোন কারণ ছাড়াই ‘ধর্ষণ কর্মটা’ করে থাকে আই মিন চান্স পেলেই এই ক্ষুধা জাগ্রত হয় তাদের; তাই একে একটা পৃথক আইডেন্টিটি দেওয়া হলো। অপরদিকে কোন কোন মানবের এই ক্ষুধার দিকে ধাবিত হতে মনের দরকার হয় না; নিজ অঙ্গখানাই যথেষ্ট- যা এর পরিপূর্ণ স্বাতন্ত্র্যতাই নির্দেশ করে।

যাকগে- ক্ষুধাকে লেবু চেপা দিয়ে তিতা বানিয়ে লাভ নেই; আমি তো আর দার্শনিক নই যে, আমার জ্ঞান গর্ভ কথা কারো ভাল লাগবে?

তা যে কথা বলতে চাচ্ছিলাম, সেটা হলো- কাউকে যদি সুখে থাকতে ভুতে কিলায় তার জন্য দায়ী কে? এই যেমন আমাকে কিলালো; আই মিন সুখ-মিশ্রিত আরামের কর্ম ঠেলে দিয়ে কঠিন কর্মযজ্ঞে ঝাঁপ দিলাম!

অফটপিকঃ পেট যেখানে মুখ্য; মন সেখানে গৌণ হতে বাধ্য!

বাই প্রোডাক্টঃ ব্লগে অনুপস্থিত থাকবো; তয় টেনশন নিয়েন না; আছি আশেপাশেই!

ধন্যবাদঃ প্রিয় বন্ধুদের!

১৬/০৬/২০১৫ রাতঃ ১১.৩১