ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

তখন সানি লিয়ন ড্রেসের খুব প্রচলন হয়েছিল এই বঙ্গদেশে। আমি রসিকতা করে বললাম, সেদিন আর দূরে নাই- যখন দেখা যাবে এই ড্রেসের সাথে একটা করে সানি লিয়ন ‘সেক্স ডল’ ফ্রি দেওয়া হচ্ছে; শপিং করে বাপ-মেয়ে খুশি মনে বাড়ী ফিরছে! অবশ্য মা’ও অখুশি হবে না সেদিন কারণ ভোগবাদ তার জন্য বিকল্প কোন সন্তুষ্টি ঠিকই রাখবে!

আমার রসিকতায় সেদিন অনেকেই চোখ রাঙিয়েছিল! তয় আমি ভয় পাই নাই; কথা তুলে নেই নাই!

আজ সিংগাপুরের একটা শপিং মলে দেখলাম ছেলেমেয়েরা সদলবলে হাসিতে, খুশিতে সমানে কনডম কিনছে! মনে মনে বললাম, সামনেই সেইদিন; সুকান্ত, ঘাবড়াবার কিছু নেই, তোমার কথা ফলবে! ফাইভ স্টার, সেভেন স্টার হোটেলগুলোর সুযোগ সুবিধার কথা নাইবা বললাম! স্বচোক্ষে তো আর দেখি নাই! তাই অফ মারলাম!

যাউকগা! এসব আজেবাজে কথা লেখার জন্য বাইরের মজা ফেলে হোটেলে লিখতে বসি নাই। বাইরে কত তামশা চলছে! কতকিছু দেখার এখনো বাকি! আর আমি কিনা ক্ষতি ছাড়া কোন লাভ নাই জেনেও ব্লগিং করছি।

খবরে পড়লাম, আলিবাবা ডট কম আজ তাদের একদিনের অনলাইন সেলে রেকর্ড করতে যাচ্ছে। প্রথম ঘণ্টায়ই ৩.৯ বিলিয়ন ডলারের পণ্য বিক্রী করেছে বাকী আছে আরও ২৩ ঘন্টা! দেখা যাক ডলারের ফিগার কই যেয়ে থামে! চীনের মত একটা আপাত সমাজতান্ত্রিক দেশও আজ পুড়ো ভোগবাদে মিশে গেছে। এখানে একটু বলে রাখি- এই ‘আলিবাবা’ অনলাইন সার্ভিসের সাথে আমি সেই ২০০৫ সাল থেকে জড়িত। বাংলাদেশে যখন কেউ তাদের চিনত না তখন অফিসে অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে তাদের TrustPass মেম্ববারশীপ কিনেছিলাম বিদেশে বায়ার খুঁজে বের করার জন্য!

সে অন্য কাহিনী আরেকদিন বলুমনে। তাই এই খবরগুলো আমি অনুসরণ করি। আমার সেদিনের কাউন্টার একাউন্ট পার্ট Ms. Liac Shin আজ ওদের ম্যানেজমেন্টে আর আমি এখনো হকারী করি!

মনে দুঃখ উতলায়া উঠতাছে >>>

১১/১১/২০১৫