ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

সারাদিনে কাজের বহুত ঝামেলার মধ্যেও নানা চিন্তা মাথার মধ্যে খচ খচ করে, মচ মচ করে; জ্বালাতন করে। চাইলেও সেগুলোকে বাইরে আনা যায় না, আবার সবগুলোকে আনা উচিতও না। এই যেমন বিজ্ঞানীরা বলে, মানুষ মিনিটে কয়েকবার করে সেক্স নিয়ে চিন্তা করে! এখন এগুলো যদি সব লিখনি হয়ে বের হয়ে আসে তাহলে তো খুবই মুশকিল! তবে ফাঁক ফোঁকরে দুই একটা লাইন বের হলে ক্ষতিও তেমন কিছু নেই। বিনোদনও তো হয়! অপরদিকে ভাল চিন্তাও তো আছে-

এই যেমন- “যে কারণে বাংলাদেশ মালয়েশিয়া হবে না” শিরোনামে একটা লেখা লিখতে চেয়েছিলাম। মাথার মধ্যে এর জন্য দশটা কারণও জমা করে রেখেছিলাম, কিন্তু সময়মত কীবোর্ড দিয়ে তা বের হতে না পেরে সেখানেই হারিয়ে গেছে। আর খুঁজে পাচ্ছিনা। সম্ভবত সার্চ ইঞ্জিনের র‍্যাম কমে গেছে; আপগ্রেড করতে হবে! কিন্তু কিভাবে? তরিকা তো জানি না!

নাসা সমানে প্লুটোর ছবি প্রকাশ করেই যাচ্ছে। মানুষকে এর বরফ আচ্ছাদিত সাদা শরীরের নগ্ন অঙ্গ দেখিয়ে দেখিয়ে লোভ দেখাচ্ছে! এই বিষয়ে আমার মত সেই আগের মতই। এই যেমন- নিউ হরাইজনে করে কিছু বীজ পাঠিয়ে সেখানে বুনে রেখে আসলে ক্ষতি কি ছিল? মনে হয় নাসার বিজ্ঞানীদের মধ্যে কৃষকের সন্তান কেউ নাই, তাই তাদের বীজবপন করার ধারনাটাই নাই। মাঝে মাঝে ভাবি, এই বিজ্ঞানীদের ডেকে বলি- বাংলামুল্লুকে এসে দেখুন না, এরা ক্যামনে বীজ বপন করে? খালি নিজদেশে না, মালয়েশিয়াতেও এরা সামান্য একটু সুযোগ পেয়েই সমানে বীজ বপন করছে। শুধুমাত্র মরুদেশগুলোতে মাথার ভয়ে এই বিষয়ে ক্ষান্ত আছে; নইলে? সেখানেও! তাই গ্রহ থেকে গ্রহান্তরে ভ্রমণ করে শুধু শুধু পয়সা নষ্ট না করে বাংলামুলুকের কয়েকজন কৃষক সন্তানকে বিজ্ঞানী হিসেবে নাসাতে নিয়োগ দেন; বাকীটা তারাই করবে!

বিশ্ববাজারে তেলের দাম আরও কমে গেছে, মানে প্রতি ব্যারেল ৩৬ ডলারে নেমে গেছে। শুনতেছি এর দাম নাকি আরও কমে যাবে। অর্থাৎ ২০ ডলারে নেমে যাবে। গোপাল ভাঁড়ের আলু পোড়ার গল্পটা বারবার মনে হচ্ছে। আবার ভয়ও হচ্ছে। যদি তেলের দাম জলের চেয়ে কমে যায় তাহলে না আবার ওয়াসা জলের পাইপে করে সুয়ারেজের নোংরা জলের বদলে পেট্রোল পাঁঠায়? আচ্ছা! পেট্রোল কি কলসে করে সিদ্ধ করা যায়? আগেই জেনে রাখি!

ধুর!

এই রাত-বিরেতে ফালতু চিন্তা করার জন্য আমাকে একখান কষে গালি দেন দেকিনি!

তবে যাই বলেন না কেন, ম্যাডামের আজকের বক্তৃতায় কিন্তু হ্যাভি মজা পাইছি; ওয়াসা ফেল!

১৫/১২/১৫ রাতঃ ১.২৯