ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

 

সত্যি বলতে কি বাঙ্গালীর কাজ-কাম দেখলে নিজের কাছেই খুব অস্থির লাগে; ভাবি আমিও তো ওদেরই একজন! তাই আমার কাজ-কাম দেখেও কেউ না কেউ অস্থির হচ্ছে, বিরক্ত হচ্ছে!

অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে- ঢাকায় স্থাপিত হতে যাওয়া মেট্রোরেলের রুট নিয়ে একটা দল ভজঘট বাঁধানোর চেষ্টা করছে। তাদের ভাষ্য হলো, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতর দিয়ে এই লাইন গেলে তাদের পড়াশোনার ক্ষতি হবে। লাইব্রেরিতে বসে মন দিয়ে পড়তে পারবে না! আরও আরও ত্যানাপ্যাছানি কথাবার্তা বলছে তারা!

আমি বিশ্বাস করি, যারা এই আন্দোলের সাথে জড়িত বা উদ্যোক্তা তাদের ৯০ ভাগই কোনদিন মেট্রো ট্রেনে চড়েনি, এমনকি দেখেওনি। আর যারা দেখেছে বা চড়েছে তারা নিশ্চিত বিদেশভুয়ের সেই ট্রেনে চড়ার ছবি ফেসবুকে শেয়ার করে সেই দেশের প্রশংসা করে ফাটিয়ে ফেলেছে। এখন নিজ দেশে তারা ভণ্ডামি করছে।

আমি নিজে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে পারেনি কারন ভর্তি পরীক্ষায় চান্স পাইনি কিন্তু আমার আমৃত্যু একটা স্বপ্ন আছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার। আমি বিশ্বাস করি, এখানে দেশের সবচেয়ে মেধাবী ছাত্র-ছাত্রী’রা পড়াশোনা করে কিন্তু ইদানিং যে তাদের মধ্যে কিছু অর্বাচীনও ঢুঁকে পড়ছে সেটা জানা ছিল না!

তাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ও বুদ্ধিমান ছাত্রদের নিকট নিবেদন করছি- অতিসত্বর আপনারা এই মেট্রোরেলের বিরোধিতাকারী অর্বাচীনদের ছেঁটে ফেলুন, আর দুইঘন্টার যাত্রা দশ মিনিটে যান; নিঃশব্দে যান! প্রতিদিনের বেঁচে যাওয়া এই সময়টুকুকে কাজে লাগিয়ে পড়ুন, পাশ করুন আর দেশে-বিদেশে নিজেদের ক্যারিয়ার গড়ুন! তাকিয়ে দেখুন, আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশগুলো কিভাবে তর তর করে এগিয়ে যাচ্ছে!

আপনারা চাইলে আমরাও পারবো!

১০/০১/২০১৬