ক্যাটেগরিঃ স্বাস্থ্য

এডিস মশা এতদিন জ্বালাতন করেছে ডেঙ্গু ছড়িয়ে। এবার সে নিয়ে এসেছে আরও ভয়ংকর অস্ত্র জিকা ভাইরাস! না এই ভাইরাসে কেউ এখনো মারা যায়নি, মানব শরীরে সামান্য জ্বর আর মাথা ব্যথা ছাড়া তেমন কোন সমস্যাও তৈরী করেনি এটা কিন্তু ঘটনা ঘটাচ্ছে অন্য জায়গায়! গর্ভবতী মা’কে কামড়িয়ে তার গর্ভের সন্তানটির ‘মাথা’ স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক ছোট করে দিচ্ছে, যার ফলশ্রুতিতে জন্ম নিচ্ছে ছোট মাথার শিশু। এই শিশুরা আদৌ সুস্থভাবে বড় হবে কিনা তা নিয়ে ইতিমধ্যেই সন্দেহ দেখা দিয়েছে।

 

zika

ইতিমধ্যেই ডেঙ্গু মশাবাহিত এই রোগ আমেরিকা অঞ্চলের ২১ টা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এবং ২৫০০ টি’র বেশী শিশু স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক ছোট মাথা নিয়ে জন্ম নিয়েছে। এরই ফলশ্রুতিতে অনেকগুলো দেশ ইতিমধ্যেই সেই দেশের মায়েদের আগামী দুই বছরের জন্য গর্ভধারণ করতে বারণ করে দিয়েছে।

zika-2

সবচেয়ে ভয়ংকর দিক হলো এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার কোন লক্ষণ ধরা পরে না! একজন মা সন্তান জন্ম দেওয়ার পরই শুধু বুঝতে পারে কি ক্ষতি তার সন্তানের হয়ে গেল।

১৯৪৭ সালে প্রথম এই ভাইরাস আফ্রিকায় দেখা দিলেও তার প্রকোপ এতদিন ছিল না কিন্ত হটাৎ করে এটা আবার ২০১৫ সালে ব্রাজিলে দেখা দেয় আর তারপর থেকে ক্রমাগত ছড়িয়ে পড়ছে।

আসুন দেখে নেই সেই অভাগা শিশুদের আক্রান্ত মাথার মাপ যার কারণ জিকা ভাইরাস বলে ব্যাপকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

zika-3

 

পর সমাচার এই যে-

আমরা যারা অন্যের গুদামের পোড়া আলু খেতে অভ্যস্ত ও সিটি কর্পোরেশনগুলোতে যারা সমানে মশার ঔষধ কেনার নামে ভেজাল কীটনাশক কিনছেন? তারা মৌসুম আসছে বুঝে তালি দিয়েন না! কারণ আপনাদেরও বউ আছে, ছেলে-নাতির ঘরে বংশের প্রদীপ জ্বলবে বলে আশায় আছেন! সুখচিন্তায় মসগুল আছেন- আরও বড় দাও মেরে নাতিপুতিদের জন্যও আলিশান বাড়ী বানিয়ে রেখে যাবেন! তাদের বলছি- অভাগা শিশুদের ছবিটা দেখুন। এমন শিশু আপনাদের ঘরেও আসতে পারে। নাকি ভাবছেন, ডেঙ্গু মশা খালি গরীবদেরই কামড়াবে? ওদের রেকর্ড কিন্তু ভাল, এ বঙ্গদেশে আমাদের ‘শেয়ার বাবা’কে দিয়ে শুরু করেছিল কিন্তু, এখনো যারা ওদের কামড় খায়, তারা সবাই উপরতলার মানুষ!

ধরে রাখুন, এদেশে ডেঙ্গু যেহেতু আছে, সেহেতু জিকাও আসবে, এটলিস্ট আপনাদের কাছে মশার ঔষধ বিক্রয় করার জন্য হলেও আসবে!

আর একটা তথ্য যোগ করি, শুধু মেয়েদের কামড়ালেই যে এই ভাইরাসে তার গর্ভের সন্তান আক্রান্ত হবে তা কিন্তু নয়, জানা যাচ্ছে- পুরুষ আক্রান্ত হলে তার সাথে যৌন মিলনেও নারী আক্রান্ত হতে পারে! অর্থাৎ আগামীর সন্তানটা’র মাথা ছোট হবে! তথ্যটা যতটা হাস্যকর মনে হচ্ছে, এর বাস্তবতা কিন্তু ভয়ংকর! গোটা মানব সভ্যতা কিন্তু হুমকির মুখে!

আমরা বিশ্বাস করি না করি, একমাত্র মাথার কারনেই আমরা ‘মানুষ’ হতে পেরেছি ! আর সেই মাথাই যদি না থাকে; তাহলে আগামীতে কি হবে?

সো খুব খেয়াল কইরা, জিকা ভাইরাস আসছে! ঔষধ কিন্তু নাইক্কা!

সুত্রঃ বিবিসি

২৬/০১/২০১৬ রাতঃ ১.৩৯