ক্যাটেগরিঃ নাগরিক মত-অমত

আধুনিক সুখ মূলত নির্ভর করে সাধারণের চেয়ে কতবেশী সুযোগ-সুবিধা ও সম্পদ তুমি নিজে ভোগ করতে পারছো। অথবা সহজভাবে বলা যায়- তুমি তাদেরকে কতটুকু শোষণ করতে পারছো?

আবার সুখ নিয়ে এভাবে যদি বলি-

আধুনিক ‘সুখ’ নির্ভর করে- কত বেশী সম্পদ তুমি তোমার নিজের ভোগে ব্যয় করতে অথবা সন্তান-সন্ততির জন্য জমা রেখে যেতে পারছো তার উপর। অর্থাৎ তুমি এখন নিজে ভোগ করে আর সন্তুষ্ট হতে পারছো না, এটাকে সুখ বলে মনে করছো না! যার ফলে নিজের ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করার পাশাপাশি সন্তানের ভবিষ্যতকেও নিরাপদ করতে যেয়ে যথেচ্চার ঘটাচ্ছো!

আবার পৌরাণিক সুখ ছিল- পুরোটাই প্রকৃতি নির্ভর, অর্থাৎ এক্ষেত্রে মানুষ নিজের ভাল-মন্দ সবকিছুই প্রকৃতির উপর শপে দিত এবং নিজের দায় এড়িয়ে যেত, পাশাপাশি এরা নিজের অর্জনকেও নিজের বলে দাবী করতে ভয় পেত! অর্থাৎ তারা সুখী হয়েও একধরণের অনিশ্চয়তায় ভুগতো।

কিন্তু আধুনিক সুখী মানুষেরা এই অনিশ্চয়তায় ভোগে না ততক্ষন পর্যন্ত, যতক্ষন না ঐশী ও মুগ্ধরা তাদের হত্যা করছে অথবা ভাল ছেলেরা ঘর ছেড়ে প্রলয় ঘটিয়ে চোখে আঙুল দিচ্ছে!

২৫/০৯/২০১৬