ক্যাটেগরিঃ দিবস প্রসঙ্গ

ঢাকার আকাশে আমি আগে কখনো এত ফানুস উড়তে দেখিনি। বাস্তবিক অর্থে- আমি নিজ চোখে আগে কখনো ফানুসই দেখিনি। সত্যি বলতে কী, গতকাল রাতে রঙ-বেরঙের অসংখ্য ফানুস দেখে আমার চোখ ধাঁধিয়ে গেছে। আমার আশে-পাশের বাড়ীর ছাদ্গুলো থেকেও অসংখ্য আতশবাজী, ফটকা আর ফানুস ওড়ানো হয়েছে ৩১ শে ডিসেম্বর’১৭ রাতের জিরো টাইমের পর থেকে। ঘরের জানালা দিয়ে ফানুসগুলোকে দেখেছি আর হেসেছি! মনে মনে বলেছি- যারা মানুষের আনন্দে জল ঢেলে দিতে চেয়েছিল, তাদের জন্য নববর্ষটা যেন উড়ে উড়ে রঙিন ফানুস হয়ে আসছে!

ছোটবেলা থেকে এন্ড্রু কিশোরের সেই গানটা শুনে আসছি-
হায়রে মানুষ রঙিন ফানুস- দম ফুরালেই ঠুস!

বাস্তবিক অর্থেই আমরা রঙিন ফানুস!

আমাদের ঘুষ খেতে বাঁধে না! দুর্নীতি করতে বাঁধে না! টাকা পাচার করতে বাঁধে না! বড় বড় হোটেলে নিজেরা পার্টি করতে বাঁধে না! বাঁধে না মিথ্যা কথা বলতেও! অন্যের নারীর প্রতি নজর ফেলতেও আমাদের চোখ টাটায় না! এমনকি মদ, ফেন্সিডিল, ইয়াবা বিক্রিয়লন্ধ টাকা পকেটে ঢুকাতেও বাঁধে না! বাঁধে না সেসব টাকা হাত পেতে নিতেও!

কিন্তু আমাদের চোখ টাটায়- মানুষকে ভাল কিছু করতে দেখলে, মানুষ সুন্দরভাবে নিজের মনের মত করে বাঁচতে চাইলে; পরিবার-পরিজন নিয়ে চলতে চাইলে, নিজ ধর্ম, সংস্কৃতি পালন করতে দেখলে! মানুষকে উৎসব করতে দেখলে! ‘মানুষ আনন্দে আছে’- এটা দেখলে যেন এদের গা জ্বলে!

আমাদের আধুনিক সমাজের প্রতিনিধি বলে দাবীদার সরকার ও তাদের প্রশাসন যখন নিরপত্তার নামে মানুষকে উৎসব করতে বাঁধা দেয়, মানুষকে ঘরে আটকে ফেলতে চায়। তখন মানুষ তাদের ক্রিয়েটিভ ব্রেন কাজে লাগিয়ে ঠিকই একটা উপায় বের করে ফেলেছে! বলা হয়, প্রয়োজনই আবিস্কারের জননী! ঠিক একইভাবে এবার ঢাকায় মানুষ ফানুস, আতশবাজী নিয়ে উৎসবে মেতেছে! “নজর খারাপের” – এই মানুষগুলোর মুখের বিজয়ীর হাসি কেড়ে নিতেই যেন অন্ধকার আকাশে আলোর বর্তিকা হয়ে উড়ে চলছে শত শত ফানুস!

সবশেষে, “খারাপ মানুষগুলোর সুমতি হোক; আর সবার জন্য শুভ হয়ে উঠুক ২০১৮ বছরটা”- এই আশায় থাকলাম!

শুভ নববর্ষ সবাইকে!