ক্যাটেগরিঃ শিল্প-সংস্কৃতি

 

যুগে যুগে যারা পৃথিবীতে অমর কাব্য রচনা করেছেন, যারা তারা তাঁদের সৃষ্টিশীলতার জন্য ঠাঁই করে নিয়েছেন মানুষের আকুন্ঠ ভালবাসা, তারা সবাই ছিলেন মানব প্রেমিক। শুধু তাই নয় এই দেশের ইতিহাসেও যারা মানুষকে ভালোবেসে তাঁদের জীবনকে উৎসর্গ করেছেন, তাঁরা আজো ইতিহাসের পাতায় কীর্তিমান মানুষরূপে অমর হয়ে আছেন, জাতিও তাঁদের অবদানকে বিনম্র চিত্তে স্মরণ করছে। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে বীরমুক্তিযোদ্ধারা এর অনন্য উদাহরণ! মহাত্মা লালন ফকিরের ভাষায় ‘মানুষ ভজলে সোনার মানুষ হবি’

SN1423

কিন্তু সাম্প্রতিক অনাকাঙ্খিত ঘটনাগুলোর পুনরাবৃত্তি দেখে মনে হচ্ছে, আমাদের চিন্তা-চেতনা, দর্শনে মানুষই আমাদের কর্মকান্ডের কেন্দ্রবিন্দু, কিন্তু সে পথ শাশ্বত কল্যাণের নয়, সে পথ অকল্যাণের, ধ্বংসের, অরাজকতার, অমানবিকতার!

তাহলে কি আমরা কোন ভাবে পথভ্রষ্ট হয়ে যাচ্ছি? এই উল্টো পথে যাত্রার অনুঘটক কারা? সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার দায়িত্ব কি শুধু একটি নির্বাচিত সরকারের? আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা কি শুভবোধের উন্মেষ ঘটাতে পারে না?

আসুন, এই সোনার বাংলাকে সকলের জন্য বাসযোগ্য করে তুলি। অশুভ শক্তির বিনাশ আর দেশপ্রেমের অমর কীর্তিগুলোকে পাথেয় করে এগিয়ে নিয়ে যাই এই প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশকে। নববর্ষে নব শুভ ও শুদ্ধ চেতনায় বিকশিত হোক আমাদের বিবেক ও প্রিয় স্বদেশ।

‘মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা/অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা।’ সকল না পাওয়ার বেদনাকে ধুয়ে মুছে, আকাশ-বাতাস ও প্রকৃতিকে অগ্নিস্নানে সূচি করে তুলতেই আবার আসছে পহেলা বৈশাখ। শুরু হবে নতুন বাংলা সালের ।

–শুভ নববর্ষ,  — স্বাগত ১৪২৩।

রঙে হোক রঙিন,

নতুন বছরের প্রতিটি দিন ›।

সুমিত বণিক,

উন্নয়নকর্মী ও ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক।

sumitbanikktd.guc@gmail.com