ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস, ফিচার পোস্ট আর্কাইভ

‘শিশুশ্রম নয়, শিশুর জীবন হোক স্বপ্নময়’ প্রতিপাদ্যে বিশ্বের মত দেশেও পালিত হলো বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস।

শিশু অধিকার ও শিশু সুরক্ষা নিয়ে কর্মরত আন্তর্জাতিক বেসরকারি সংস্থা এডুকেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন-এডুকো ও এর অংশীদার সংস্থা ইএসডিও দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে গত বুধবার বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এছাড়াও দুই শতাধিক কর্মজীবী শিশু-কিশোরসহ শিক্ষক ও বিভিন্ন উন্নয়নকর্মীদের অংশগ্রহণে শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণ হতে একটি র‌্যালির আয়োজন করা হয়। র‌্যালি শেষে চিত্রাঙ্গন প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা প্লাজায় অনুষ্ঠিত হয়।

আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রকল্প পরিচালক (যুগ্ম-সচিব) মো. রুহুল আমিন খান, এডুকো বাংলাদেশের পরিচালক- প্রোগ্রাম অপারেশন্স আব্দুল হামিদ এবং এডুকো-ইএসডিওর স্কুলের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মকর্তাবৃন্দ।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন অভিনয় শিল্পী লিটু আনাম, জামিল আহমেদ।

অনুষ্ঠানে মো. রুহুল আমিন খান বলেন,  “বাংলাদেশ সরকার শিশুশ্রম বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করছে এবং এর কারণ অনুসন্ধানে কাজ করে চলছে। সরকার ইতোমধ্যে ৩৮টি কাজকে শিশুদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করেছে। সরকারের বিভিন্ন কাজের সাথে এডুকোর মত সংস্থার কাজের সমন্বয়ের মাধ্যমে শিশুশ্রম নিরসন সম্ভব।”

এডুকোর অধিকার পাঠশালার শিক্ষার্থী ১০ বছর বয়সী সুইটি আক্তার নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলে,  “আমি বর্তমানে ক্লাস থ্রিতে লেখাপড়া করছি। আমার বাবা নেই; মার অসুস্থতার কারণে আমারই অন্যের বাসায় কাজ করে সংসার চালাতে হয়।

“সকালে স্কুলে ক্লাস করে বাসায় ফিরে মাকে সাহায্য করেই আবার কাজে যেতে হয়। দৈনিক ৩-৪ ঘণ্টা কাজ করে যা পাই, কোনোমতে সেটা দিয়েই সংসার চালাই।”

এডুকোর কর্মকাণ্ড তুলে ধরে আব্দুল হামিদ বলেন,  “এডুকোর কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে আমরা শিশু অধিকার নিশ্চিত ও সমাজের গতানুগতিক মনোভাব এবং দৃষ্টিকোনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনার লক্ষ্যে কাজ করছি।

“আমাদের প্রত্যাশা ২০১৯ সালের মধ্যে আরও শিশু শিশুশ্রম থেকে দূরে এসে লেখাপড়ার মাধ্যমে নিজেদের জীবনকে সুন্দর করে গড়ে তুলবে এবং ধীরে ধীরে আমাদের একটি সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে সহায়তা করবে।”

মন্তব্য ২ পঠিত