ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

 

কবিতা: কথোপকথন

কবি: পূর্ণেন্দু পত্রী

কণ্ঠ: কল্পনা শাহনাজ ও মাহিদুল ইসলাম

এলবাম: হৃদয় গহন দ্বারে

 

আমার অত্যন্ত প্রিয় বন্ধু এবং বড় বোন কল্পনা শাহনাজের কণ্ঠে এই আবৃত্তিটা শুনে কিছুটা স্মৃতি কাতর হয়ে গেলাম । একটা সময় ছিল যখন কবিতা, আবৃত্তি এসবই ছিল আমার স্বস্তির আধার, শুদ্ধতার বহিঃপ্রকাশ ।  টি.এস.সি’র সেই আড্ডা, মহড়া আর মঞ্চের উপস্থিতি আজ কেবল স্মৃতি।  মনে আছে, একবার আমার কোনো এক আত্মীয় আমার ভাইকে জিজ্ঞেস করেছিলেন `আচ্ছা, আশরাফ কি এখনো ওই সব কবিতায় জড়িত’ ? ভাইয়ের উত্তর ছিল `হুম, ভাইয়া এখনো জড়িত আর আমরা সবাই জর্জরিত’। আমার অনিয়ম, আমার রাত জাগা এবং বড় মামার শাসন পরিবারকে বেশ খানিকটা বিচলিতই করতো। কবিতার প্রতি ভালোবাসা সব কিছুকে উপেক্ষা করেছিল।  কবিতার জন্য ছিলাম জেদী এবং আপোষহীন।

বাস্তবতা বড়ই কঠিন। জীবিকার তাগিদে, একটু ভালো থাকার তাগিদে ছাড়তে হলো কবিতার ভালোবাসা।  শুধু কি কবিতা ? ছেড়ে এলাম স্ত্রী, পুত্র, কন্যা, মা এবং দেশকে, ভালো থাকবো কিংবা ভালো রাখবো বলে।  আদতে কতটা ভালো আছি?

পুনশ্চ: কল্পনা শাহনাজ একজন আবৃত্তি শিল্পী, যাঁর কণ্ঠে আছে ভালোবাসা, শুভ্রতা এবং শুদ্ধতা।  ভালো থেকো এবং ভালো রেখো প্রিয় `কল্পমা’।