ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

কাল পত্রিকায় দেখলাম, পুলিশ নাকি লিমনের নামে গোপনে অভিযোগ পত্র দিয়েছে।পুলিশকে দোষ দিয়ে লাভ নেই, তারাতো শুধু হুকুম পালনের মালিক, হুকুম দেনেওয়ালা তো উপরের লোক।আজ আমাদের মাননীয়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কে (মাননীয়া না বললে আবার মন্ত্রী অবমাননার দায়ে মামলা হয়ে যেতে পারে) সাংবাদিক জিজ্ঞেস করেছেন এই ব্যাপারে, তিনি বলেছেন, তার এ ব্যাপারে কিছুই করার নেই। তাইতো তার কিছু করার থাকবে কি করে, যা করার তাতো করেই ফেলেছেন। এখন লিমনের পক্ষে কথা বললে তো র‍্যাব কে হালাল করা যাচ্ছে না। লিমনের জন্য দুঃখ হয়, কিন্তু আমাদের তো এই দুঃখ প্রকাশ করা ছাড়া আর কিছুই করার নেই। আমরা তো শোষকের দলে।

আমার এই লেখাটা পড়ার পর অনেক ব্লগার রা হয়তো দুই একটা কমেন্ট লিখবেন, এদের ধিক্কার জানাই, হ্যান ত্যান………

কিন্তু ভাই, এদের কে ধিক্কার জানিয়েও লাভ নেই, কারন যারা ক্ষমতার আসনে বসেন তাদের চামড়া হয়ে যায় গন্ডারের মত। তাদের কাতুকুতু বোধ টাও ভোঁতা হয়ে যায়। কিন্তু এখানে আমাদের জন্য আশার বিষয় হলো, পুর্বের কয়েকটি শাসন আমলের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদের ক্ষমতা পরবর্তী ভাগ্য নির্ধারণ। এটা সম্ভবত স্বয়ং আল্লাহ তাআলার আড়শ থেকে তাদের ভাগ্যে লিখিত শাস্তি। তাদেরকে তো আর আমাদের মত অভাগারা কিছু বলতেও পারবে না কিছু করতেও পারবেনা। সুতরাং, আমারা আর কয়েকটা দিন অপেক্ষা করি, সাহারা আপার ভাগ্যের নির্মম পরিহাস টা দেখার জন্য। আমি, আপনি হয়তো লিমনের জন্য দূর থেকে একটু সহমর্মিতা দেখাতে পারি, তার জন্য দোয়া করতে পারি কিন্তু একবার ভেবে দেখেনতো স্বয়ং লিমনের হৃদয় কি বলছে? তার মায়ের মন কি বলছে? লিমনের এবং তার মায়ের হাক কি সাহারা খাতুন এড়াতে পারবেন? সাহারার শেষ পর্যন্ত ছাড়াখাড়া হওয়ার দৃশ্য দেখে যদি লিমনের মন শান্তি পায়। এছাড়া আমরা আর কি ই বা বলতে পারি!

আমাদের প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত ধার্মিক মানুষ, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন, কোরান তেলাওয়াত করেন নিয়মিত। তাকে বড্ড জিজ্ঞেস করতে ইচ্ছা হয়, তিনি কি কোরানের অর্থ বোঝে তেলাওয়াত করেন নাকি শুধু পরহেজগারি দেখানোর জন্য কোরান পড়েন। পবিত্র কোরানের অনেক সুরায় বর্নিত আছে জালিম শ্বাসকদের স্বাস্তির ব্যাপারে। মজলুমদের বিচার প্রাপ্তির জায়গা একমাত্র আল্লাহর কাছেই।

দেশ ছেড়েছি ১০ বছরের উপরে হলো, বিদেশে এসেছিলাম পড়ালেখা করতে, আশা ছিলো একদিন পড়ালেখা শেষে দেশে ফিরে যাবো, দেশকে যেন কিছু দিতে পারি। পড়ালেখা শেষ হলো কিন্তু দেশে যাওয়া আর হলোনা।এখনো বন্ধুদের বলি দেশের জন্য মনটা কাঁদে, দেশে চলে আসবো, বন্ধুরা বলে আমাকে নাকি শুখে থাকতে ভুতে কিলায়। আসলেও তো তাই। কি গ্যারান্টি আছে যে, আমার পরিনতি লিমনের মতো হবেনা? কে দিবে গ্যারান্টি আমিও যে ক্রসফায়ারের স্বীকার হবোনা? যে দেশে রাষ্ট্রের দ্বারা সন্ত্রাস সংঘটিত হয় সে দেশে আর যাই হোক সভ্যতা অর্জন সম্ভব না। আর সন্ত্রাস দমন? সেটা তো ভুতওয়ালা সরিষা দিয়ে ভুত তাড়ানোর নামান্তর মাত্র।

এই দেশের শাসক হয়তো পাচ বছর ক্ষমতার বলে পতাকা খচিত গাড়ি, বডিগার্ড আর এসকর্ট নিয়ে জীবন রক্ষা করতে পারেন কিন্তু তার পরের পরিনতি এড়াতে পারেন না।যেমন টি নাসিম সাহেব ও দেখেছেন, এখন দেখছেন বাবর (বেংলিশ মন্ত্রী) সাহেব।সাহারা আপাকেও হয়তো আর কয়েকটা দিন অপেক্ষা করতে হবে সেই দিনের জন্য, আর কিছু্র জন্য না হলেও লিমনের মায়ের হাক কি আল্লাহ দেখবেন না? চৌধুরী আলমের মায়ের বা তার সন্তানদের হাক কি আল্লাহ শুনবেন না? আল্লাহ মহান তিনি সবই শুনেন এবং দেখেন।আল্লাহর মাইর দুনিয়ার বাইর।