যে কথা কখনো কাউকে বলিনি!

/

বয়স ষোল কি সতের। হঠাৎ করে শরীর ও মন কেমন যেন পাল্টে যেতে লাগল। শরীরে যেমন অনেক পরিবর্তন এলো তেমনি মনেও রং ধরলো। মোটেও স্বাস্থ্যবান ছিলাম না। রোগা পাতলা শীর্ণ চেহারা তার উপর আবার শ্যামলা বরণ। আকারে ছোট ছিলাম বলে স্কুলের বন্ধুরা আমাকে ‘লিলিপুট’ বলে ডাকতো। তখন স্কুলের সিলেবাসে ‘গ্যালিভার ট্রাভেল্স, পড়ানো হতো। আমি তখন… Read more »

যখন আমি মানুষ হলাম!

/

আমার ভূতুড়ে জ্বালাতনে অতিষ্ঠ হয়ে মা আমাকে মামাবাড়িতে পাচার করে দিলেন। আমি সবেমাত্র তখন প্রাথমিক শেষ করে থানা সদরে মাধ্যমিকে ভর্তি হয়েছি। পড়ালেখায় নেহায়েত মন্দ ছিলাম না। মা আমাকে ( ভূত হতে) মানুষ করার জন্য মামাদের হাতে সোপর্দ করলেন। আমি যেন অথৈ সাগরে পড়লাম! মামারা ছিলেন প্রচণ্ড রাশভারী প্রকৃতির। আর নানা তো সাক্ষাৎ যম! পাড়া… Read more »

যখন আমি ভূত ছিলাম!

/

তখন আমার বয়স কতই বা হবে। বড়জোর আট-দশ। বাবা-মায়ের আট সন্তানের মধ্যে আমি দ্বিতীয়। অনেক সন্তান বলে মা আমাদের খুব একটা সময় দিতে পারতেন না। আমরা মাকে খুব জ্বালাতন করতাম। বিশেষ করে আমি ছিলাম সবচেয়ে দুষ্টু; বদের শিরোমণি। বেশী জ্বালাতন করলে মা মারতেন। আমি অবশ্য বেশী জ্বালাতন করার সুবাদে বেশী মার খেতাম। মায়ের হাতের মার… Read more »