ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

 

গত ২২ ডিসেম্বর ঢাকার অদূরে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ থানার লোক ও কারুশিল্প জাদুঘরের পাশ দিয়ে কিছু দূর এগিয়ে গিয়ে পেলাম সনমান্দী ইউনিয়ন। সেখানে অবস্থিত সনমান্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপস্থিত হলাম। যেখানে ঐদিন চলছিল বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন স্কলারশীপ পরীক্ষার কেন্দ্র। এটি একটি বেসরকারী বৃত্তি পরীক্ষা।

সনমান্দী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যুতের সুইচ বোর্ডে একটি ভাঙ্গা বোর্ড দেখা গেল। যা থেকে যেকোন সময়ই দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ভাগ্যক্রমে দেখা হয়ে গেল ঐ স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সহসভাপতির সাথে। ওনার সাথে এসব বিষয়ে আলাপচারিতার এক পর্যায়ে স্কুলের মাঠের মাঝখানে একটি গাছের নিচে বসলাম।

গাছটির পাতাগুলো দেখতে কিছুটা তালপাতার মত। আগ্রহ সহকারে গাছটির নাম জিজ্ঞাসা করলাম। উনি বলতে পারলেন না। আরো অবাক হলাম যখন শুনলাম গাছটির বয়স প্রায় শত বছর। শুধু না দেখলে নয়, দেখলেও বিশ্বাস করা কঠিন।

কৌতূহল বশত আরো কয়েকজন মুরব্বির কাছে জানতে চাইলে তাঁরাও একই কথা বললেন। অথচ সেই গাছের বেহাল অবস্থা। এটি পাশে কাঠমিস্ত্রিরা স্কুলের পাশের মাদ্রাসার জন্য বসে বসে বেড়া তৈরি করছেন। এমনকি ঐতিহ্যবাহী গাছটির ব্যাপারে কোন প্রকার উদ্যোগ কেউ কখনো গ্রহণ করেন নাই।

সকলের দেখার জন্য গাছটির ছবি সহ সুইচ বোর্ডের ভাঙ্গার ছবি প্রদর্শিত হল।

 

সোনারগাঁ থানার সনমান্দী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দাঁড়িয়ে আছে নাম না জানা একটি শতবর্ষের গাছ। সোনারগাঁ থানার সনমান্দী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি সুইচ বোর্ডের অবস্থা।