ক্যাটেগরিঃ দিবস প্রসঙ্গ

যখন কিছুই বুঝতেন না। ছিলেন অবুঝ প্রাণী তখনো একজন নারীই আপনাকে ধারণ করেছেন এবং পৃথিবীর আলো বাতাসে এনেছেন। আপনার আপনি হয়ে উঠবারও বহু পূর্বে থেকেই আপনার অস্তিত্বের যাবতীয় কিছুর সূচনা ও পরিনতি এই নারীর বদৌলতেই। অতপর আপনি বেড়ে উঠেছেনও নারীটির অপার মমতা ভালবাসায়।

একজন নারী একজন মানুষ।
একজন নারী একজন মা।
একজন নারী একজন বোন।
একজন নারী একজন স্ত্রী।
একজন নারী একজন কন্যা।

নারীর সাথে আপনার সম্পর্কটা কত জটিল, যৌগিক ও স্পর্শকাতর! মানুষ হিসেবে নারীর প্রতি আপনার আচরণ কেমন হওয়া উচিত? নারীর প্রতি আচরণ কেমন হওয়া উচিত তার সূত্রও এই সম্পর্কগুলোর সাথে সম্পর্কিত।

মানুষ হিসেবে মানুষে মানুষে সহমর্মিতা, শ্রদ্ধাবোধ ও সংবেদনশীলতা থাকবে, সেটাই স্বাভাবিক। কিন্তু একজন পুরুষ হিসেবে অপর মানুষটি যখন নারী তখন সে আপনার কাছে ন্যায্যতই আরো বেশি কিছুর দাবী রাখে। উপরে যেমনটা বলেছি আপনার পৃথিবীতে আসার সূচনার ও পরিনতির পুরোটাই নারীর বদৌলতে।

তাহলে মায়ের জাত নারীর প্রতি আপনি আলাদা করে যত্নশীল, শ্রদ্ধাশীল ও সংবেদনশীল হবেন না কেন? কৃতজ্ঞতাবোধ থাকবে না কেন? এর জন্য তো আলাদা কোন নির্দেশের দরকার নেই। স্বাভাবিক বোধের জায়গা থেকেই বেশি যত্নশীল হওয়া উচিত, কৃতজ্ঞ থাকা উচিত, সংবেদনশীল থাকা উচিত।

বংশরক্ষা একটা কথিত বিষয়। বংশরক্ষার মত অলীক বিষয়টা নিয়েও পুরুষই বেশি তাড়িত হয়। তবুও সেই বংশরক্ষার জন্যও নারী একান্ত অপরিহার্যই নয় শুধু, অাবশ্যিক। মানুষ হিসেবে তো বটেই। আপনার প্রতি নারীর অবদানের কারনেই নারীর প্রতি আরো যত্নশীল হোন, স্পর্শকাতর হোন, সংবেদনশীল হোন। শ্রদ্ধা করুন, ভালবাসুন। সহমর্মী হোন।

প্রকৃতিগতভাবেই পুরুষের চাইতে নারীর উৎপাদনশীলতা বহুগুণে বেশি। পুরুষের জন্ম ও উত্থানে নারীর অবদান প্রকৃতি নির্ধারিত হলেও নারীর প্রতি পুরুষের দায় কিন্তু কমছে না। নারী না চাইলেও পুরুষের জন্য অহেতুক কিছু প্রাকৃতিক বিড়ম্বনা নারীকে বইতে, সইতে হয়। এতে করেও পুরুষের দায় কমে না। বরং বাড়ে। কার্যকরণ যাই হোক নারী ব্যতিত পুরুষ কোন ফলাফলই অর্জন করতে পারে না। কোনভাবেই না। এখানেই পুরুষ ঊনমানুষ। অসম্পূর্ণ।

কাজেই নারীর প্রতি সর্বোচ্চ সংবেদনশীল হোন। প্রকৃতির অপার মহিমাকে বুঝুন। শ্রদ্ধা করুন। প্রকৃতিতে আপনার অবস্থানকেও বুঝুন। কর্মক্ষেত্রে পথ চলতে, জীবন-যাপনের প্রতিটি ক্ষেত্রে নিজের সংবেদনশীলতা দিয়ে নারীর প্রতি প্রকৃতি নির্ধারিত দায় পালন করুন। নারীকে ভাল রাখুন। নিজে ভাল থাকুন। পৃথিবীকে ভাল রাখুন।