ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে ডেসটিনি এই মর্মে দুদক ডেসটিনির বিরুদ্ধে দুটি মামলা করেছে ।
বাংলাদেশ ব্যাংক আজ রিপোর্ট করেছে মাত্র ৬৩ কোটি টাকা পাচার করেছে ডেসটিনি ( সূত্র- প্রথম আলো) ।
তবে আসল কথা হল ডেসটিনি ৬৩ কোটি টাকার পণ্য আমদানি করেছে । বাংলাদেশ ব্যাংকের রিপোর্টেও এটি উল্লেখ রয়েছে । আর এই ব্যাপারটিকে বাংলাদেশ ব্যাংক পাচার হিসেবে উল্লেখ করছে !!
আর পণ্য আমদানি যদি পাচার হয় তাহলে সবচেয়ে বেশি পাচার করেছে এই পর্যন্ত সরকার নিজে এবং প্রথম আলোর মালিক প্রতিষ্ঠান ট্রান্সকম গ্রুপ । কারন ট্রান্সকমের নিজেদের কোনো পণ্য নেই বললেই চলে । তাদের সকল পণ্য আমদানিকৃত । যেমন- পেপসি, মাউন্টেইন ডিউ, স্লাইস, মিরিন্ডা, সেভেন আপ, স্যামসাং পণ্য, ফিলিপস এর বিভিন্ন পণ্য ইত্যাদি । তাছাড়া তাদেরকে কেএফসি এবং পিজ্জা হাট এর ফ্র্যাঞ্চাইজি হিসেবে কোটি কোটি টাকা বিদেশে পাঠাতে হয় ।
তাই বর্তমান পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে দুদকের উচিত বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধেও একটি মামলা করা ।
বাংলাদেশ ব্যাংকের উচিত দুদকের বিরুদ্ধে একটি মামলা করা ।
আর ডেসটিনির উচিত বাংলাদেশ ব্যাংক ও দুদক উভয়ের বিরুদ্ধে মানহানি ও ব্যবসায়িক ক্ষতিপূরণের মামলা করা ।
আর আমাদের ৪৫ লক্ষ ডিস্ট্রিবিউটরের উচিত প্রথম আলো ও যুগান্তরের বিরুদ্ধে জনপ্রতি একটা করে ৪৫ লক্ষ মামলা করা । যাতে করে বাংলাদেশের হলুদ সাংবাদিকরা আর কখনো মাথাচাড়া দিতে না পারে, তাদের বিষদাঁত আর কোনো নীতিবান মানুষকে যেন আর আক্রান্ত করতে না পারে, দেশ ও জাতির উন্নতি যেন আর কখনো এদের দ্বারা বাধাগ্রস্ত হতে না পারে ।