ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

আমি গত একমাস দরে অন্য একটি ব্লগ এ আমার মনের কথা শেয়ার করছি কিন্তু আমার এই লেখাটী তারা শেয়ার করছে না বারবার মূছে দিচ্ছে এবং মূছে দেওয়ার কারণ বলছে না । আপনারা আমার এই লেখা শেয়ার না করলেও দয়া করে কি কারণে আমার এই গুরুত্বপূর্ণ লেখা টি শেয়ার করতে পারছেন না আমাকে জানাবেন । যদি কোন পরিবর্তন করতে হয় তাও দয়া করে জানাবেন । অনেক আশা করে আপনাদের এই ব্লগ এ আজ মেম্বার হলাম । এখন মূল কথাই আশা যাক ঃ

কেএফসি’তে গিয়ে আমার কিছু মনের কথা আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম এই পোস্ট এ দয়া করে আপনাদের গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিবেন। কে ফ সি তে একটা বারগার খেতে হয় ২৫০ টাকা+ শুল্ক ১৫% অর্থাৎ ৩ ডলারের বেশি । তাদের কথা তারা আন্তর্জাতিক মান বজায় রাখে বাংলাদেশেও । তারা কি বাংলাদেশে ডলারে তাদের কর্মচারীদের বেতন দেই ??? আমেরিকাতে একজন লেবার ও মাসে ২০০০ $ আয় করে মানে বাংলা টাকাই ১৫০০০০ টাকার বেশি । কিন্তু বাংলাদেশে তারা আমেরিকার সম পরিমাণ টাকা রাখে যেকোন খাবারে । আর আমরা বাঙ্গালিরা ফুটানি মারার জন্য মাসে ২০০০০ টাকা আয় হলেও গার্ল ফ্রেন্ড খুশি করার জন্য ঐসব রেস্টুরেন্ট এ যাই ।

অনেক সময় নিজের ইচ্ছা না থাকলেও গার্ল ফ্রেন্ড এর পাল্লাই পইরা যাইতে হই। যারা চাকরি করে ব্যবসা করে তাদের পকেটে টাকা থাকে তাদের কথা আলাদা । কিন্তু যারা কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় পড়ে তাদের পকেটে এত টাকা কোথা থেকে আসে বুঝি না । ঐসব রেস্টুরেন্ট এ তাদের দেখা যাই সবচেয়ে বেশি । এই রেস্টুরেন্ট সবসময় তাদের দ্বারা জমজমাট থাকে ।। আমার প্রশ্ন কলেজ এর ছেলেদের পকেটে এত টাকা আসে কোথা থেকে ?? তারা গার্ল ফ্রেন্ড কে খুশি করার জন্য এই টাকা কি বাবার পকেট কেটে ম্যানেজ করে না অন্য কোন উপাই ? আমি জানি অনেক ছাত্র, ছাত্র পড়িয়ে আয় করে ও অনেকে কল সেন্টার এ জব করে । কিন্তু এই কষ্টের টাকা এইভাবে কি করছ করতে কি মন চাইবে ? কারণ গার্ল ফ্রেন্ড কে নিয়ে গেলে হাজার টাকা তু বিল আসবেই ।

ঢাকাই এখন কোন মেস এ থেকে পড়া লেখা করলেও মাসে মিনিমাম ৮০০০ – ১০০০০ খরচ হয়(২ হাজার সিট ভাড়া + ৪ হাজার মাসিক খাবার খরচ + অন্যান্য) ।

ঢাকাই লক্ষ লক্ষ ছেলে মেস এ থেকে পড়া লেখা করা । কারণ ভাল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় সব ঢাকাই সাথে ৫০+ প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি তো আছেই । সবার ফ্যামিলি থেকে তাদের প্রতিমাসের এই খরচ কি পাঠাই? মেয়েদের ক্ষেত্রে খরচ তো আরও বেশি । তাহলে যাদের বাসা থেকে এই টাকা পাঠায় না তারা ঢাকাই থাকার জন্য বাড়তি খরচ কি করে ম্যানেজ করে ??

হয়ত অনেকে তার মাসিক খরচের জন্য নানা অপরাধের আশ্রয় নেই । এইভাবে চলতে থাকলে ঢাকা তে অপরাধের যে প্রবণতা তা দিন দিন বেড়ে যাবে বিশেষ করে ছিন্থাই । অনেক ছাত্রই বাবা মামার সাথে জগড়া করে অনেক জেদ ধরে ঢাকাই আসে। আসার পর তাদের আর ফিরে যাওার সুজুগ থাকে না কারণ আমাদের ইগু সমস্যা । সরকারের এই বিষয়টি মনোযোগের সহিত চিন্থা ভাবনা করা উচিৎ যারা শখের কারণে অপরাধ করে সেটা হইত বন্ধ করা যাই কিন্তু যারা নিরুপাই হয়ে অন্যায় করে সেটা বন্ধ করা কি সম্ভব ?